শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

পেয়ারার হাজার পুষ্টিগুন…

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৬

স্বাস্থ্য ডেস্ক : বাজারে এখনও পাওয়া যাচ্ছে পেয়ারা। এটি আমাদের দেশের একটি জনপ্রিয় ফল। সবুজ এ ফলটি খেতে যেমন সুস্বাদু তেমনি পুষ্টিগুণেও অতুলনীয়। পেয়ারার প্রায় ১০০টিরও বেশি প্রজাতি রয়েছে। মেক্সিকো, মধ্য আমেরিকা, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া প্রভৃতি দেশে পেয়ারা বেশি জন্মে।
তবে আমাদের দেশেও এখন প্রচুর পেয়ারার ফলন হচ্ছে। বরিশাল, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, চট্রগ্রাম, ঢাকা, গাজীপুর, রাঙ্গামাটি, কুমিল্লাসহ বিভিন্ন জেলায় বর্তমানে বাণিজ্যিকভাবে বিভিন্ন জাতের পেয়ারার চাষ হচ্ছে।
পেয়ারার খাদ্য উপাদান :
পেয়ারাতে আঁশ, পানি, কার্বহাইড্রেট, পোট্রিন ভিটামিন এ, ভিটামিন কে, পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম, ফসফরাস, ক্যালসিয়াম ইত্যাদি খাদ্য উপাদান রয়েছে। এছাড়া এতে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন বি ও প্রয়োজনীয় খনিজ পর্দাথ রয়েছে।gauva-tree
পেয়ারার উপকারিতা :
১. উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ রাখতে পেয়ারা বেশ উপকারী।
২. পেয়ারায় ইনফেকশনরোধী উপাদান থাকায় হজমক্রিয়া শক্তিশালী করে।
৩. রক্তসঞ্চালন ভালো রাখে তাই হার্টের রোগীরা খেতে পারেন পেয়ারা।
৪. অ্যাজমা, ঠাণ্ডা-কাশিতে কাঁচা পেয়ারার জুস বেশ উপকারী।
৫. ওজন কমাতে, কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে এবং মুখের রুচি বাড়াতে জুড়ি নেই পেয়ারার।
৬. ত্বক, চুল ও চোখের পুষ্টি জোগায় পেয়ারা।
৭. পেয়ারাতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ময়েশ্চার যা তারুণ্য বজায় রাখে র্দীঘদিন। ত্বকের রুক্ষ ভাব দূর করে ও শীতে পা ফাটা রোধ করে।
৮. ডায়াবেটিস, ক্যান্সার, প্রস্টেট ক্যান্সারের মতো রোগ প্রতিরোধেও সাহায্য করে পেয়ারা।
একটি পেয়ারায় রয়েছে ৪টি কমলালেবুর সমান পুষ্টিগুণ। তাই সপ্তাহে অন্তত একটি করে হলেও আমাদের পেয়ারা খাওয়া উচিত।