শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯

অবশেষে তামিম ইকবাল মুখ খুললেন ‘রমিজ-কাণ্ড’ নিয়ে

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৬

Tamim_zmliসংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠানরত পিএসএলে কিন্তু দারুণ সময় কাটছে তামিমের। আজকের ম্যাচেও দারুণ এক ইনিংস খেলে তার দল পেশাওয়ারকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছেন। ম্যাচ সেরাও হয়েছেন। কিন্তু আজ ম্যাচ পরবর্তী অনুষ্ঠানে কান ঢাকা রমিজ কোন নতুন বিতর্কের জড়াননি। তাই আজ রাতে তার পেটের ভাত হজমে সামান্য সমস্যা হতে পারে।

ইংরেজিতে উত্তর দিয়ে জবাবটা সেদিন এক রকম মাঠেই দিয়ে দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে বয়ে গেছে সমালোচনার ঝড়। ৯ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা তামিমের ইংরেজি জ্ঞান রমিজের জানা না-থাকাটাই বিস্ময়ের। তামিম তো আর এই প্রথম ভাষ্যকারদের সঙ্গে কথা বলছেন না। রমিজের সঙ্গেও বেশ কয়েকবার কথা হয়েছে।

এমনকি সেই ম্যাচের আগে দিনই তামিম সাইডলাইনে দাঁড়িয়ে অনর্গল ইংরেজিতে পিএসএলে খেলা নিয়ে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন। তখন রমিজ ধারাভাষ্য কক্ষেই ছিলেন।

‘ইংরেজি চলবে তো, নাকিৃ?’ বলার পর রমিজ এমনভাবে থেমেছিলেন, অনেকের মনে হয়েছে, রমিজ তামিমকে উর্দুতে বলারই নীরব প্রস্তাব দিয়েছিলেন। তবে তামিম মাথা নেড়ে জানান ইংরেজিতেই বলবেন। এ নিয়ে বাংলাদেশের সমর্থকেরা রমিজের ওপর একচোট নিয়েছে। শুধু বাংলাদেশ নয়, পাকিস্তানের ক্রিকেট সমর্থকেরাও রমিজের ইংরেজি জ্ঞান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন নানা সময়ে। তাঁকে নিয়ে বেশ কিছু​ কৌতুকও প্রচলিত আছে। আছে তাঁর করা ভুলের সিরিজ ভিডিও।

ঘটনার কেন্দ্রে ছিলেন যিনি, সেই তামিম অবশেষে এ ব্যাপারে তাঁর বক্তব্য জানালেন। গতকাল রাতে মুঠোফোনে পিএসএল নিয়ে কথোপকথনের একপর্যায়ে দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে ৬ ফেব্রুয়ারির ঘটনা সম্পর্কেও জানতে চাওয়া হলো তামিমের কাছে। এসব ক্ষেত্রে ক্রিকেটাররা বিতর্ক এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন, তামিমও করলেন। তবে ব্যাপারটা যে তাঁকেও বিস্মিত করেছে এবং এ নিয়ে যে তাঁর মনেও ক্ষোভ আছে, গোপন রাখতে পারেননি সেটা, ‘ওই সময় আমি বিষয়টা ধরতে পারিনি। আমি এটাও বলতে পারব না কাজটা আমাদের হেয় করার জন্য ইচ্ছে করে করা হয়েছে কি নাৃউনি (রমিজ) কেন এটা করলেন জানি না। ইচ্ছে করে করে থাকলে অবশ্যই তা ঠিক হয়নি। তবে কোনো উদ্দেশ্য নিয়ে না করে থাকলে অন্য ব্যাপার।’

মাঠে, মাঠের বাইরেও। দলের পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের সঙ্গেও তাঁর ভালো সখ্য, ‘আমার সঙ্গে সবারই ভালো সম্পর্ক। আফ্রিদি, হাফিজ, কামরান আকমলদের সঙ্গেই বেশি সময় কাটে।’

এখন পর্যন্ত টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনি। পেশোয়ার জালমির হয়ে এখন পর্যন্ত পাঁচ ম্যাচ খেলে তিন ফিফটিসহ তামিমের মোট রান ২৩৭। বিপিএলের ফর্মটাই যেন আরও শানিয়ে নিচ্ছেন। প্রস্তুত হচ্ছেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য।

স্বাভাবিকভাবে দলও ভীষণ খুশি তামিমের ওপর, ‘ওরা আগে থেকেই আমার খেলা পছন্দ করে। এখানে আমি দলের পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে পারছি বলে সবাই খুশি। তবে ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি, আমার পক্ষে আরও ভালো ব্যাটিং করা সম্ভব। পরের ম্যাচগুলোতে চেষ্টা করব আরও ভালো কিছু করতে।’ প্রথমআলো