শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৯

খুলনায় হাজারো মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত মিরাজ

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৬

m4খুলনা প্রতিনিধি: অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ মিশন শেষ করে খুলনার ছেলে যুব টাইগার অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ বাড়ি ফিরছেন। এ সংবাদ পেয়ে হাজারো মানুষ অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছিলেন খালিশপুর নতুন রাস্তা মোড়ে। সময় বাড়ার সাথে সাথে মিরাজের বাসস্থান খালিশপুরে লোকসমাগম বাড়তে থাকে। এক পর্যায়ে জনস্রোতে পরিণত হয়।

গাড়ী, পিক-আপ, কয়েক’শ মোটর সাইকেল আর হাজারো মানুষ এসে জড়ো হয় নগরীর নতুন রাস্তা মোড়ে। গাড়ীতে মাইক লাগিয়ে তখন বাজছে বাংলাদেশের ক্রিকেট উদ্দীপনার গান। বাজছে নানান ধরনের ব্যান্ড বাদ্যও। কিছুক্ষণ পরপরই ফুটছে পটকা। মিরাজ, মিরাজ স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে খালিশপুরের জনপদ। এসময় চারিদিক থেকে ছিটানো হচ্ছে ফুল। সবাই মিরাজকে কাছ থেকে দেখতে চায়। অবশেষে হাজারো মানুষের ভালোবাসায় সিক্ত হয়ে বীরের বেশে জন্মস্থান খুলনায় পা রাখলেন যুব বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটার টাইগার অধিনায়ক মেহেদী হাসান মিরাজ।m5

মঙ্গলবার সন্ধ্যার আগে খালিশপুর নতুন রাস্তার মোড়ে গাড়ী থেকে নামলে মুহূর্তেই মিরাজকে নিয়ে আনন্দে মেতে ওঠে হাজার হাজার মানুষ।

জন্মস্থান খুলনার খালিশপুরের মানুষের ভালোবাসায় মুগ্ধ হয় যুব টাইগার অধিনায়ক মিরাজ। এই তো সেই মিরাজ কিছুদিন আগেও খালিশপুরের অলিতে-গলিতে ছুটে বেরিয়েছেন। স্থানীয় মাঠে অনুশীলন করেছেন। সেই মিরাজই আজ আমাদের গর্ব। আজ সে শুধু খুলনা নয়, বাংলাদেশের গর্ব। বিশ্বদরবারে আজ মিরাজ যুব টাইগার নামে খ্যাত। সদ্য সমাপ্ত যুব বিশ্বকাপের সেরা ক্রিকেটারের ট্রফিও তুলে নিয়েছেন তিনি। খুলনায় পা রাখতেই ভক্তদের ভালোবাসায় আনন্দে আত্মহারা হয়ে যান মিরাজ।m3

মিরাজ সবাইকে হাত নেড়ে ভালোবাসার জবাব দেন। মিরাজকে বাস থেকে সাথে নিয়ে নামেন তার প্রথম কোচ আল মাহমুদ। এ সময় কোচকে জড়িয়ে ধরেন তিনি। সাথে ছিলেন মিরাজের পিতা জালাল আহমেদ। এতদিন পর ছেলেকে কাছে পেয়ে খুশিতে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন তিনি। জড়িয়ে ধরেন ছেলেকে। ছিলেন স্থানীয় আরেক ক্রীড়া সংগঠক মোঃ ইউসুফ আলী। তিনিও মিরাজকে কাছে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

পরে একটি ছাদখোলা মাইক্রোবাসে উঠে হাত নেড়ে আশপাশের সবাইকে ভালোবাসার জবাব দেন মিরাজ। চারটি মাইক্রোবাস, পাঁচটি পিক-আপ, আর কয়েকশ মোটর সাইকেলে শোভাযাত্রা সহকারে মিরাজকে নিয়ে নগরীর নতুন রাস্তা মোড় থেকে জোড়াগেট হয়ে খালিশপুরে তার বাড়ির কাছে কাশিপুরে এসে থামে। সেখানেও অপেক্ষা করছিলেন অনেকে। তারাও মিরাজকে ভালোবাসায় সিক্ত করেন।m2

এরপরেই বাসায় আসেন মেহেদী হাসান মিরাজ। মিরাজ বাসায় ফিরলে সেখানে আবেগী পরিবেশের সৃষ্টি হয়। দীর্ঘদিন পর আদরের ধন সন্তানকে কাছে পেয়ে মিরাজের মা জড়িয়ে ধরেন তাকে। কপালে চুম্বন একে দেন। মিস্টি খাইয়ে দেন। স্থানীয়রা তার বাড়ির কাছেও ভীড় করে রাখে। এসময়টা ছিল মিরাজের জন্য আনন্দঘন এক মুহূর্ত।m2

উল্লেখ্য, এই মিরাজের নেতৃত্বে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের সেমিতে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। পরে অবশ্য ফাইনাল খেলা হয়নি, সেমিতে হারতে হয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে। তবে ব্যাট-বলে সমান দাপটের জন্য টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মেহেদি হাসান মিরাজ।