বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৯

সেলিম ওসমান যখন একজন ‘কৃষক’ (ছবি সহ)

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৬

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে অনেকেই ফোন করে পাচ্ছিলেন না নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের এমপি সেলিম ওসমানকে। ফোনে রিং বাজলেও কেউ রিসিভ করেনি। ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে পরিচিত এ এমপি হয়তো কোন মিটিংয়ে আছেন এমন ধারণা ছিল ফোন করে ব্যর্থদের। কিন্তু খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সকাল থেকে তিনি ছিলেন কৃষকের ভূমিকাতে। এদিন তিনি নিজ খামারে কৃষকদের সঙ্গে ব্যস্ত সময় কাটিয়েছেন শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষ ছেড়ে।

sa-320160218162146

দিনের পুরোটা সময় তিনি কৃষকদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে খোঁজ খবর নিয়েছেন। জেনেছেন তাদের কাছ থেকে অভিজ্ঞতা নেওয়ার মত অনেক তথ্য। এমপি আর ব্যবসায়ী নেতা হিসেবে কৃষকের সঙ্গে দিনব্যাপী কর্মকাণ্ডে অনেকেই টিট করে বলেছেন ‘কৃষক সেলিম ওসমান’।


বিভিন্ন সভা সমাবেশে তিনি বলেন নিজেকে একজন কৃষক হিসেবে দাবী করে থাকেন। সেলিম ওসমান তার নির্বাচনী এলাকার আওতাধীন বন্দর উপজেলার মানুষকে নিজেদের জমি বিক্রি না করে সেখানে চাষাবাদ করার আহবান জানিয়ে প্রশ্ন করে ছিলেন আমি পারলে বন্দরের মানুষ পারবে না কেন?


নারায়ণগঞ্জের ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান, ব্যবসায়ী নেতা সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান যে একজন সত্যিকারের কৃষক তা খুলনা জেলার ফুলতলা উপজেলার দক্ষিণডিহি গ্রামে গেলে স্বচক্ষে দেখা যাবে। দক্ষিণডিহি এলাকায় প্রায় ৩০ একর জমি নিয়ে নারায়ণগঞ্জের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের কৃষি খামার। যেখানে তিনি ৬’শ গরু, ৩’শ ছাগল, ২৫০টি ভেড়া, বিভিন্ন প্রজাতির ২ লাখ ৫০ হাজার পিছ মাছ, পালন করে আসছেন দীর্ঘ এক যুগ ধরে।

এছাড়াও রয়েছে ক্ষেতের ধান, আম, কাঠাল সহ দেশীয় মধুফলের বিশাল বাগান। যেখান থেকে কৃষক সেলিম ওসমানের প্রতি মাসের আয় প্রায় ২৫ লাখ টাকা যার বাৎসরিক পরিমান ৩ কোটি টাকা। আর এ কৃষিখাত থেকে আয় হওয়া টাকাটাই নারায়ণগঞ্জের সাধারণ জনগনের কল্যাণ ও উন্নয়নে অনুদান দিয়ে ব্যয় করে থাকেন তিনি।


কৃষক সেলিম ওসমানের সাথে একদিন: প্রতিদিনের মত রাত ৩টায় ঘুম থেকে উঠে নিজের ব্যক্তিগত কাজ শেষ করে সকাল ৭টায় ঢাকার ধানমন্ডির বাসা থেকে হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দর দিয়ে সকাল সোয়া ৮টার ফ্লাইটে যশোর বিমান বন্দরে পৌছান তিনি। যশোর বিমান বন্দর থেকে প্রায় ৭০ কিলোমিটার সড়ক পথে যাত্রা করে আসেন খুলনা জেলার ফুলতলা উপজেলার বেজেরডাঙ্গা ইউনিয়নের দক্ষিণদিহি গ্রামে নিজের ফাইভস্টার ফার্ম হাউজে এসে পৌছান সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান।

সেখানে পৌছে কোন রকম বিশ্রাম না নিয়েই নেমে পড়েন কৃষি কাজে। ব্যস্ত হয়ে উঠেন গরু গুলোকে খাবার খাওয়াতে। প্রায় ৬’শ গরু বাছুর খাইয়ে চলে তিনি চলে যান ছাগল গুলোকে খাবার দিতে।

প্রায় ৩’শ ছাগলের মাঝে সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানকে অনেকটাই শিশু সুলভ মনে হয়েছে। ছাগল শাবক গুলোকে কোলে তুলে আদর করেছেন। ছাগল শাবক গুলোও সেলিম ওসমানের সাথে খেলার ছলে খাবার খেয়েছে। সেলিম ওসমানের কোলে উঠে তার গাল চেটে দিচ্ছে। ছাগলের খাবার দেওয়ার শেষে ফার্মের ভেতরে থাকা ৮টি পুকুরে প্রায় ২লাখ ৫০ হাজার মাছের খাবার দেন। পাশাপাশি মাছের ওজন ও আকার বৃদ্ধি সঠিক ভাবে হচ্ছে কিনা তা পরীক্ষা করতে পুকুরে জাল ফেলে মাছ ধরে দেখেন।