সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

‘যৌথ প্রযোজনার ছবিগুলো যেন যৌথ প্রতারণা না হয়’

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৬

বিনোদন ডেস্ক: শাকিব খান। দীর্ঘসময় ধরে দর্শকের ভালোবাসা নিয়ে জনপ্রিয় এই নায়ক তার আসন এখনও শক্ত রেখেছেন। চলচ্চিত্রের খারাপ সময়েও বেশকিছু ভালো ছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন। আর এবারই প্রথম যৌথ প্রযোজনার ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি। চলচ্চিত্রের বর্তমান ব্যস্ততা, যৌথ প্রযোজনার ছবিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আজকের ‘আলাপন’-এ কথা বলেছেন তিনি।
কেমন আছেন? বর্তমানে কোন ছবির কাজ করছেন?
ভালো আছি। বর্তমানে কালাম কায়সারের ‘মা’ ও আবদুল মান্নানের ‘পাঙ্কু জামাই’ নামে দুটি ছবির কাজ করছি। আরও তিন-চারটি ছবির বিষয়ে কথা চুড়ান্ত হয়েছে। কিন্তু এখনও শুটিং শুরু করিনি।
নতুন বছরে আপনার কাজগুলো কি ধরনের থাকবে ?
এ বছরে আমার অভিনীত এ পর্যন্ত একটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। উত্তম আকাশ পরিচালিত এ ছবির নাম ‘রাজা ৪২০’। ছবিটি মুক্তির পর বেশ সাড়া পেয়েছি। চলচ্চিত্রের এই খারাপ সময়ে ছবিটি দর্শকরা গ্রহণ করেছে জেনে ভালো লেগেছে। ছবিটি এখনও প্রেক্ষাগৃহে চলছে। এ ছবিতে আমার সহশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন ওমর সানি ও অপু বিশ্বাস। বছরের শুরুতে ছোট বাজেটের মৌলিক ও কমেডি ধাচের এ ছবিটি নিয়ে হল মালিক, দর্শক ও ডিস্ট্রিবিউশনসহ সবাই বেশ প্রশংসা করেছে। আর নতুন বছরে আমার কাজগুলো অবশ্যই অন্য ধরনের থাকবে। দর্শকের সময়ের সঙ্গে রুচির পরিবর্তনও এসেছে। সেই চিন্তা থেকেই নতুন ছবিগুলোতে ভিন্নতা থাকবে।
সামনে কি কি ছবি মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে?
সামনে শামিম আহমেদ রনির ‘মেন্টাল’, সাফিউদ্দিন সাফির ‘পূর্নদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী টু’, মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজের ‘সম্রাট’, বুলবুল বিশ্বাসের ‘রাজনীতি’সহ বেশকিছু ছবি মুক্তি পাবে।
আর জাজের সঙ্গে আপনার ছবিটার খবর কি?

shakib-Khan-50
জাজের সঙ্গে আমার ছবিটা চুড়ান্ত হবার পর নায়িকাও চুড়ান্ত হয়েছে। এ ছবিতে আমার বিপরীতে থাকছেন শ্রাবন্তী। ছবির কাজে মার্চের মাঝামাঝি সময়ে প্রায় এক মাসের জন্য ভারতে যাব। ওপার বাংলা থেকে এ ছবি প্রযোজনা করছে এসকে মুভিজ। আর পরিচালনা করবেন বাংলাদেশ থেকে সীমান্ত এবং ভারত থেকে জয়দেব। ছবির গল্প লিখেছেন কলকাতার পেলে ব্যানার্জি ও বাংলাদেশের আবদুল্লাহ জহির বাবু।
বর্তমান সময়ে আপনি তরুণ পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করছেন। কেমন করছেন তারা?
একটা কথা আছে, পুরানো চাল ভাতে বাড়ে। ওই বিষয়টি তো রয়েছেই। এর পাশাপাশি নতুনদের সুযোগ করে না দিলে তারা আসবে কিভাবে। বড় বড় প্রোজেক্টে নতুনদেরও কাজের সুযোগ দিতে হবে। এরমধ্যে সবাই যে খুব ভালো করবে তা কিন্তু না। এই যেমন দশজনের মধ্যে পাঁচজন হয়তো টিকে যাবে। ভালো কাজ দর্শকদের উপহার দিবে। এই যেমন ‘রাজনীতি’, ‘মেন্টাল’ ও ‘সম্রাট’ ছবির কাজ শুরু করার পরই নির্মাতারাও বেশ আলোচনায়। এটাও তো একটা বড় বিষয়।
ছবির পাইরেসি রোধের খবর কি?
পাইরেসি, ছবির মেশিনসহ বেশকিছু সমস্যা রয়েছে আমাদের। ছবি চালানোর জন্য উপযুক্ত মেশিন নেই। বেশিরভাগ ছবি পেনড্রাইভে চালাতে হয়। সিনেমা হলে উপযুক্ত মেশিন কিনে এনে বসালে দুই সপ্তাহে অন্য কাউকে ১৭০০০ করে টাকা হল মালিকদের দিতে হবে না। তাছাড়া তখন প্রযোজক ও হল মালিকও ব্যবসা ভালো করবে। হল মালিকদের সেই ব্যবস্থা নিতে হবে। আর র‌্যাবের একটা বিশেষ টিম কাজ করছে। তবে পাইরেসি রোধের জন্য শক্ত আইন দরকার।
ঢাকার বাইরে পুরনো ছবি বেশি চলে। এর কারণ কি ?
একটা সময় তো ঈদ ছাড়া ভালো ছবি চলেনি। তাই ঢাকার বাইরে পুরনো ছবিগুলো চালাতে হল মালিকরা বাধ্য হয়েছিলেন। তবে এখন অবস্থার একটু পরিবর্তন এসেছে। আর এ বছর বেশ ভালো কিছু ছবি মুক্তি পাবে। সুতরাং এ সমস্যা হয়তো আর থাকবে না।
যৌথ প্রযোজনার ছবিগুলো কেমন হচ্ছে?
এ পর্যন্ত যৌথ প্রযোজনার যেসব ছবি নির্মাণ হয়েছে আমার জানামতে খুব একটা ভালো ব্যবসা করেনি। তবে যৌথ প্রযোজনার বিরুদ্ধে আমি না। শুধু এটুকু বলব, যৌথ প্রযোজনার ছবিগুলো যেন যৌথ প্রতারণা না হয়। কারণ যৌথ প্রযোজনার কাজ খুব ভালো। বাজেটের দিক থেকে ভালো এবং এপারের আর্টিস্ট-ওপারের আর্টিস্ট মিলে একটা ভালো কাজ হবার সম্ভাবনা থাকে। তাই দুই দেশের নির্মাণাধীন এই ছবিগুলো সঠিকভাবে সঠিক নিয়মে নির্মাণ হলে ভালো কিছুই হবে।
মানবজমিন