শনিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৯

নারায়ণগঞ্জে সেনা মোতায়েন নয়: সিইসি

SONALISOMOY.COM
ডিসেম্বর ১১, ২০১৬
news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জ সিটিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ‘স্বাভাবিকের চেয়ে সুন্দর’ রয়েছে জানিয়ে ভোটে সেনা মোতায়েনের সম্ভাবনা চূড়ান্তভাবে নাকচ করে দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ।
Related Stories

ভোটকেন্দ্র দখল ঠেকাতে অস্ত্রের ‘যথাযথ’ ব্যবহার চান সিইসি

জোট নেতাদের নিয়ে সাখাওয়াতের গণসংযোগে ফখরুল

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ও জেলা পরিষদ নির্বাচন সামনে রেখে শনিবার দুপুরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে বৈঠক শেষে নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্ত সাংবাদিকদের জানান তিনি।

সিইসি বলেন, “নারায়ণগঞ্জে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিকের চেয়ে সুন্দর রয়েছে। আগামীতে তা আরও উন্নত হবে। এখন পর্যন্ত সেনা মোতায়েনের মতো কোনো পরিস্থিতি নেই।”

সকালেও চাষাঢ়ায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের পক্ষে গণসংযোগে অংশ নিয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচনে ফের সেনা মোতায়েন দাবি তুলে ধরেন।

এর আগে সেনা মোতায়েনের পরিস্থিতি নেই বলে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে বলা হলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের জন্য আইনশৃঙ্খলা বৈঠকের অপেক্ষা করা হচ্ছিল।

আগামী ২২ ডিসেম্বর প্রথমবারের মতো মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠেয় এ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিসহ ৭ দলের প্রার্থী রয়েছে। নির্দলীয় কাউন্সিলর পদে ১৫৬ জন সাধারণ ও সংরক্ষিত পদে ৩৮ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন।

এই নির্বাচনের আইনশৃঙ্খলার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে শনিবার শেরেবাংলনগরে এনইসি মিলনায়তনে বৈঠকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, আনসার-ভিডিপি, কোস্টগার্ড, গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধি, রিটার্নিং কর্মকর্তা, জেলা ও স্থানীয় পুলিশ, প্রশাসনের শীর্ষ কর্মকর্তারা ও সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিনিধিও উপস্থিত ছিলেন।

বেলা ১টায় বৈঠক শেষে সিইসি কাজী রকিবউদ্দীন সাংবাদিকদের বলেন, নারায়ণঞ্জে সন্ত্রাসী-মাস্তান ও বহিরাগত অনুপ্রবেশকারী যারা নির্বাচনে বিঘ্ন সৃষ্টি করবে তাদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

“অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছি।এখন তা চলমান রয়েছে। আগামীতে এ অভিযান আরও দৃশ্যমান করতে বলেছি।”

মাঠ পর্যায়ের পরিস্থিতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করে সিইসি বলেন, “এভারেজ যে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি রয়েছে, তা স্বাভাবিকের চেয়ে ভালো রয়েছে। কঠিনভাবে ব্যবস্থা নিতে বলেছি। কোনো পর্যায়ে আইনশৃঙ্খলার অবনতি ছাড় দেওয়া হবে না।”

ভোটকেন্দ্র দখল ঠেকাতে মাঠ কর্মকর্তাদের কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে কাজী রকিব বলেন, “আগের রাতে যাতে কোনো ধরনের জোরাজুরি না হয়, কেন্দ্র দখল করতে না পারে সে বিষয়ে সতর্ক থাকতে বলেছি।

“ভোটের দিনও যাতে কেউ কেন্দ্রে দখল করতে না পারে, সে বিষয়েও কঠোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।”

দেশজুড়ে প্রথম জেলা পরিষদ নির্বাচনে সীমিত ভোটার থাকলেও স্থানীয়ভাবে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ ও স্বাভাবিক রাখতে মাঠ কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানান সিইসি।

আইনশৃঙ্খলা বৈঠকে বিভিন্ন বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা ছাড়াও চার নির্বাচন কমিশনার ও ইসি সচিব উপস্থিত ছিলেন।