শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯

ধৈর্য ধরতে বললেন তামিম

SONALISOMOY.COM
জানুয়ারি ৭, ২০১৭
news-image

ক্রীড়া প্রতিবেদক: দেশের মাটিতে গত এক-দেড় বছরে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। সেই বাংলাদেশই এবার নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে যেন খেই হারানো এক দল। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং কিছুই হচ্ছে না ঠিকঠাক। ফলাফল, ওয়ানডে সিরিজের তিনটি ম্যাচেই হারের পর টি-টোয়েন্টিতেও পরপর দুটি হার! কন্ডিশন আলাদা বলেই কি নিজেদের খুঁজে পেতে সমস্যা হচ্ছে বাংলাদেশের? তামিম ইকবাল অন্তত তা-ই মনে করেন। বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশকে নিয়মিত জিততে দেখার জন্য আরও ধৈর্য ধরতে হবে বলেই মনে করেন বাংলাদেশের এই ওপেনার।

মাউন্ট মঙ্গানুইয়ের বে ওভালে আজ অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে তামিম বলেছেন, ‘পাঁচটা ম্যাচ হেরেছি আমরা। সমর্থকেরা কতটা হতাশ, আমি জানি। তবে মনে রাখতে হবে, আমরা বিদেশি কন্ডিশনে খেলছি। সবারই একটু ধৈর্য ধরতে হবে। আমাদের পুরো স্কোয়াডে যে ২২ জন আছে, এর মধ্যে বোধ হয় ১০ জনই এই প্রথমবার এই ধরনের কন্ডিশনে খেলছে। যেকোনো দলই যখন বিদেশে যায়, তখন তাদের জন্য সফরটা খুব কঠিন হয়। ইংল্যান্ডকেই দেখুন, টেস্ট ক্রিকেটের এত ভালো দল, অথচ ভারতের কাছে ৫-০ ব্যবধানে (আসলে ৪-০) হেরেছে।’

তবে পাঁচটা ম্যাচেই খুব অল্প সময়ের জন্য হলেও বাংলাদেশ জয়ের আশা জাগিয়েছিল—এটাই বড় ব্যাপার মনে করেন তামিম। এই অল্প সময়ের সম্ভাবনাটাকে আরও দীর্ঘ করতে পারলেই সাফল্য আসবে বলে মনে করেন তামিম, ‘দেখুন, ক্রিকেট এমন একটা খেলা, যেখানে রাতারাতি সব বদলে ফেলা সম্ভব না। আজকে দেশের মাটিতে আমরা যে সাফল্য পাচ্ছি, সেটার জন্যও আমাদের প্রায় বছর দশেক অপেক্ষা করতে হয়েছে। বিদেশি কন্ডিশনেও যদি আমাদের ভালো করতে হয়, নিয়মিত সফর করতে হবে, খেলতে হবে। হয়তো আগামী ৫-১০টা ম্যাচেও ফল আমাদের পক্ষে নাও আসতে পারে। কিন্তু ধীরে ধীরে ভুলগুলো কমিয়ে আনলে আমাদের পক্ষেও ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভব।’

টানা পাঁচ ম্যাচ হারলেও এই সিরিজ থেকে এখনো একটা-দুটো ম্যাচে জয় নিয়ে ফেরার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী তামিম, ‘দলের সবার মধ্যে অন্তত এই বিশ্বাসটা আছে যে আমরা জিততে পারি। হয়তো আমাদের পারফরম্যান্স আমাদের এই বিশ্বাসটাকে প্রকাশ করছে না। কিন্তু আমি এতটুকু বলতে পারি, আমরা যে ২২ জন দলের সঙ্গে আছি, আমরা কোনো দিন স্বপ্ন দেখা বন্ধ করিনি যে বিদেশি কন্ডিশনে আমরা জিতব। এটাও মনে করি না যে আমরা এখানে শুধু হারার জন্য এসেছি। চেষ্টা করছি। হয়তো সাফল্যও আসবে।’