বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

২৮৯ রানে থামল বাংলাদেশ

SONALISOMOY.COM
জানুয়ারি ২০, ২০১৭
news-image

ক্রীড়া প্রতিবেদক :
সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ টেস্টে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ইনিংসে ২৮৯ রান করেছে বাংলাদেশ। ক্রাইস্টচার্চের হ্যাগলি ওভালে ম্যাচ শুরু হয়েছে বাংলাদেশ সময় আজ ভোর ৪টায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ৮৪.৩ ওভার শেষে বাংলাদেশ ২৮৯/১০। রুবেল হোসেন ১৬ (অপরাজিত)

আউট: কামরুল ইসলাম রাব্বী (২), নুরুল হাসান সোহান (৪৭), তাসকিন আহমেদ (৮), মেহেদী হাসান মিরাজ (১০), নাজমুল হোসেন শান্ত (১৮), সাকিব আল হাসান (৫৯), সাব্বির রহমান (৭), সৌম্য সরকার (৮৬), মাহমুদউল্লাহ (১৯), তামিম ইকবাল (৫)।

তিন জীবনে সোহানের ৪৭! : ক্যারিয়ারের প্রথম ইনিংসে সোহানের ব্যাট থেকে এল ৪৭ রান। তবে এ রান করতে তিনটি জীবন পেয়েছেন উইকেটরক্ষক এ ব্যাটসম্যান। টিম সাউদি একটি ও রস টেলর সোহানের দুটি ক্যাচ ছাড়েন। বড় ইনিংস খেলার বড় সুযোগ পেয়েছিলেন সোহান। কিন্তু নিজের ভুলেই সাজঘরে ফিরেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। বোল্টের লেগ স্ট্যাম্পের বাইরের শর্ট বলে পুল করতে গিয়ে উইকেটের পিছনে ক্যাচ দেন সোহান।

মিরাজের ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস!: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বল হাতে মেহেদী হাসান মিরাজ যতটা ভালো করেছেন, ব্যাটিং ঠিক ততটাই খারাপ! ৩ টেস্টে তার ব্যাটিং ইনিংসগুলো ছিল এরকম ১, ১, ১, ২ ,০ এবং ১। অবশেষে দুই অঙ্কের দেখা পেলেন ডানহাতি এ অলরাউন্ডার। শুক্রবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে করেন ১০ রান। তবে বেশিদূর এগুতে পারেনি তার ইনিংস। নেইল ওয়াগনারের বলে বোল্ড হন ১০ রানে।

সাউদির বাউন্সে শান্ত সাজঘরে: ষষ্ঠ উইকেটে শান্ত ও সোহান দারুণ প্রতিরোধ গড়ে তুলেন। চা-বিরতি পর্যন্ত দুই ব্যাটসম্যান দারুণ ব্যাটিং করেন। কিন্তু বিরতি থেকে ফিরেই উইকেট হারাল বাংলাদেশ। সাউদির ভয়ংকর বাউন্সে ১৮ রানে সাজঘরে ফিরেন বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান।  অভিষেকে দ্যূতি ছড়ানো শুরু করলেও ইনিংসটি বড় করতে পারেননি তরুণ ক্রিকেটার।

দুই অভিষিক্তের ব্যাটে প্রতিরোধ:  ক্রাইস্টচার্চে টেস্ট ক্যাপ পেয়েছেন নুরুল হাসান সোহান ও নাজমুল হোসেন শান্ত। মধ্যাহ্ন বিরতির পর ১৭ বলে ৩ উইকেট হারানোর পর দুই অভিষিক্ত ক্রিকেটার মাঠে আসেন। তাদের ব্যাট ধরেই প্রতিরোধ পেয়েছে বাংলাদেশ। চা-বিরতি পর্যন্ত ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে ৪৬ রান যোগ করেছেন তারা।

১৭ বলের মধ্যে ৩ উইকেটের পতন: সৌম্য ও সাকিবের শতরানের জুটিতে ভালোই এগোচ্ছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সৌম্যর বিদায়ের পর দ্রুতই ফিরে যান সাব্বির রহমান আর সাকিবও। বোল্টের বলে সাউদিকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন সাব্বির (৭)। পরের ওভারে সাউদির লেগ স্টাম্পের বাইরে বলে উইকেটকিপার ওয়াটলিংকে ক্যাচ দেন সাকিব (৭৮ বলে ৯ চারে ৫৯)। ২ উইকেটে ১৬৫ থেকে বাংলাদেশের স্কোর তখন ৫ উইকেটে ১৭৯। ১৭ বল আর ১৪ রানের মধ্যে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে সফরকারীরা।

সৌম্যর বিদায়ে ভাঙল শতরানের জুটি: শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ব্যাট করা সৌম্য ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ফিফটি পূর্ণ করেন লাঞ্চের আগেই। দ্বিতীয় সেশনে সেটিকে সেঞ্চুরিতে রূপ দেওয়ার দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। কিন্তু ৩৬তম ওভারে বোল্টের ডি গ্র্যান্ডহোমের দারুণ একটি ক্যাচে বিদায় নিতে হয় তাকে। ১০৪ বলে ১১টি চারের সাহায্যে ক্যারিয়ার সেরা ৮৬ রান আসে সৌম্যর ব্যাট থেকে। সৌম্যর বিদায়ে ভাঙে সাকিবের সঙ্গে তার তৃতীয় উইকেটে গড়া ১২৭ রানের বড় জুটি। বাংলাদেশের স্কোর তখন ৩ উইকেটে ১৬৫।

সাকিবের ফিফটি: বোল্টকে দারুণ এক আপার কাটে চার মেরে ৬৫ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন সাকিব। বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান ক্যারিয়ারের ২০তম ফিফটি করতে চার মারেন ৮টি।

সৌম্য-সাকিব জুটির শতরান: লাঞ্চ বিরতি থেকে ফেরার পরপরই সৌম্য-সাকিবের তৃতীয় উইকেট জুটির শতরান পূর্ণ হয়। ৩০তম ওভারে বোল্টের বল সৌম্য মিড উইকেটে পাঠিয়ে ৩ রান নেওয়ার মাধ্যমে এ জুটির শতরান পূর্ণ হয় ১১৭ বলে।

প্রথম সেশনে সৌম্য-সাকিবের দৃঢ়তা: ১১ ওভারের মধ্যে তামিম ও মাহমুদউল্লাহর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছিল বাংলাদেশ। সেখান থেকে আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে দলকে পথ দেখান সৌম্য ও সাকিব। দুজনের ৯০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে বাংলাদেশ ২৭ ওভারে ২ উইকেটে ১২৮ রান নিয়ে লাঞ্চ বিরতিতে যায়। প্রথম সেশনে রান তোলার গড় ৪.৭৪, বাউন্ডারি ১৯টি।

সৌম্যর প্রথম টেস্ট ফিফটি: আগের তিন টেস্টে কখনো ওপেনিংয়ে নামা হয়নি। এই টেস্টেই প্রথমবার ওপেনিংয়ে সুযোগ পেয়েছেন সৌম্য। সেই প্রথমে জন্ম দিলেন আরেকটি প্রথমের। ক্যারিয়ারের প্রথম টেস্ট ফিফটি পেলেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। ২২তম ওভারে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের তিন বলের মধ্যে দুই চার মেরে ৫৪ বলে মাইলফলক স্পর্শ করেন তিনি।

বাংলাদেশের শতরান: ২২তম ওভারে ডি গ্র্যান্ডহোমের তৃতীয় বলে ডিপ মিড উইকেট দিয়ে চার মারেন সৌম্য। তাতে পূর্ণ হয় বাংলাদেশের শতরান।

সৌম্য-সাকিব জুটির ফিফটি: ৩৮ রানের মধ্যে তামিম ও মাহমুদউল্লাহর উইকেট হারিয়ে অনেকটাই চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। তবে তৃতীয় উইকেট জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসান। ১৯তম ওভারে নিল ওয়াগনারের শেষ বলে সৌম্য ৩ রান নিলে পূর্ণ হয় এ জুটির ফিফটি।

বেশিক্ষণ টিকলেন না মাহমুদউল্লাহ : প্রথমবারের মতো তিন নম্বরে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। শুরুটা ভালোই করেছিলেন। পঞ্চম ওভারে ট্রেন্ট বোল্টের তিন বলের মধ্যে মারেন দারুণ দুটি চার। কিন্তু বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি ডানহাতি ব্যাটসম্যান।  একাদশ ওভারে ওই বোল্টের বলেই উইকেটরক্ষক বিজে ওয়াটলিংকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন (১৯)। বাংলাদেশের স্কোর তখন ২ উইকেটে ৩৮।

শুরুতেই আউট তামিম : আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের প্রথম টস হেরেছেন। অধিনায়কত্বের টেস্টে ব্যাটিংয়েও প্রথম ইনিংসে ব্যর্থ তামিম ইকবাল। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে কিউই পেসার টিম সাউদির লেগ স্টাম্পের বাইরের শর্ট বলে উইকেটরক্ষক ওয়াটলিংকে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফেরেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান (৫)। বাংলাদেশের স্কোর তখন ১ উইকেটে ৭। তামিমের বিদায়ের পর তিনে নামেন মাহমুদউল্লাহ।

চার পরিবর্তন নিয়ে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ : টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। চোট জর্জরিত বাংলাদেশ দলে চারটি পরিবর্তন এসেছে। নিয়মিত অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম আঙুলের চোটে ছিটকে পড়ায় প্রথমবারের মতো বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিচ্ছেন তামিম ইকবাল।

মুশফিকের জায়গায় টেস্ট অভিষেক হয়েছে উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহানের। ইমরুল কায়েসের জায়গায় খেলছেন সৌম্য সরকার। মুমিনুল হকের জায়গায় টেস্ট অভিষেক হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তর। এ ছাড়া দলে ফিরেছেন পেসার রুবেল হোসেন। তাকে জায়গা দিতে বাদ পড়েছেন আরেক পেসার শুভাশিস রায়।

অপরিবর্তিত নিউজিল্যান্ড দল : আগের টেস্টের একাদশ নিয়েই নেমেছে স্বাগতিকরা।