মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৯

নাসরিন ২০১৪ সাল থেকেই সানির স্ত্রী

SONALISOMOY.COM
জানুয়ারি ২২, ২০১৭
news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক :

তথ্যপ্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেফতার বাংলাদেশ জাতীয় দলের বাম-হাতি অফ স্পিনার আরাফাত সানি ২০১৪ সালেই নাসরিন সুলতানাকে বিয়ে করেছেন।

মামলার এজহারে নাসরিন সুলতানা এ তথ্য উল্লেখ করেন।রোববার আরাফাত সানিকে গ্রেফতার ও রিমান্ডে নেয়ার পর এ তথ্য বেরোয়।

সেখানে বলা হয়, ৭ বছর আগে পরিচয় সূত্রে আমাদের ঘনিষ্ঠতা হয়। এক পর্যায়ে দু’জন ভালোবেসে ০৪/১২/২০১৪ তারিখে পরিবারকে না জানিয়ে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হই।কিন্তু বিয়ের তিন বছরেও সানী দুই পরিবারের সঙ্গে আলাপ করে আনুষ্ঠানিকভাবে তুলে নেননি। বারবার এ বিষয়ে চাপ দিলেও তিনি কালক্ষেপণ করেন।

গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে নাসরিন সুলতানাকে বিয়ে দেয়ার জন্য তার পরিবার পাত্র খোঁজা শুরু করে। ওই সময় তাদের বিয়ের বিষয়টি সবাইকে জানিয়ে তুলে নেয়া অথবা বিবাহ বিচ্ছেদের মাধ্যমে সম্পর্ক ছিন্ন করার জন্য আরাফাত সানীকে অনুরোধ জানান নাসরিন।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ‘গত বছরের ১২ জুন রাতে ১টা ৩৫ মিনিটে নাসরিন সুলতানা (Nasrin Sultana) নামের একটি ফেসবুক ফেইক আইডি থেকে নাসরিনের আসল ফেসবুক মেসেঞ্জারে সানী-নাসরিনের অন্তরঙ্গ মুহূর্তের কিছু ছবি পাঠানো হয়। ওই ফেইক আইডিটি আরাফাত সানির ব্যক্তিগত মোবাইলফোন নম্বর থেকে খোলা হয়েছিল এবং ওই ছবিগুলো শুধু সানির কাছেই ছিল।’

প্রসঙ্গত, রোববার তথ্যপ্রযুক্তি আইনে আরাফাত সানিকে ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রোববার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মোহাম্মদপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ইয়াহিয়া ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। পরে শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম প্রণব কুমার হুইয়ে সানির একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

একইদিন ভোরে নিজ বাড়ি সাভারের আমিন বাজার থেকে সানিকে গ্রেফতার করে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ।

মোহাম্মদপুর থানার ওসি মীর জামাল উদ্দিন বলেন, চার-পাঁচ দিন আগে নাসরিন সুলতানা নামে এক তরুণীর দায়ের করা তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলায় আরাফাত সানিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।সানি দীর্ঘদিন ধরে ওই তরুণীর নোংরা ছবি প্রকাশের ভয়ভীতি দেখিয়ে আসছিলেন বলে অভিযোগ এসেছে।