শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯

বাংলাদেশের রৌদ্রোজ্জ্বল দিন

SONALISOMOY.COM
মার্চ ১৭, ২০১৭
news-image

ক্রীড়া ডেস্ক :

দারুণ শুরুর পর দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে ‘পাগলাটে’ ব্যাটিংয়ে হঠাৎ পথ হারিয়েছিল বাংলাদেশ। লিডের আশাও তখন অন্ধকার দেখছিল। তবে তৃতীয় দিনে দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে সব হিসাব পাল্টে দিয়েছেন সাকিব আল হাসান ও মোসাদ্দেক হোসেন। তাদের ব্যাটে রৌদ্রোজ্জ্বল একটা দিন কাটিয়েছে বাংলাদেশ।

কলম্বো টেস্টের তৃতীয় দিন শেষে শ্রীলঙ্কা দ্বিতীয় ইনিংসে ৫৪/০। করুনারত্নে (২৫*) ও থারাঙ্গা (২৫*)। এখনো ৭৫ রানে পিছিয়ে আছে শ্রীলঙ্কা।

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস: ৪৬৭/১০ (তামিম ৪৯, সৌম্য ৬১, ইমরুল ৩৪, সাব্বির ৪২, তাইজুল ০, মুশফিক ৫২, সাকিব ১১৬, মিরাজ ২৪, মুস্তাফিজ ০, মোসাদ্দেক ৭৫, শুভাশীষ ০*)।

শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস: ৩৩৮/১০।

১২৯ রানের মূল্যবান লিড: অভিষেকে ফিফটিকে সেঞ্চুরিতে রূপান্তর করতে পারলেন না মোসাদ্দেক হোসেন। শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে রঙ্গনা হেরাথের বলে স্টাম্পড হয়েছেন তরুণ ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ১৫৫ বলে ৭ চার ও ২ ছক্কায় ৭৫ রান করেছেন তিনি। প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কার ৩৩৮ রানের জবাবে ৪৬৭ রানে অলআউট হয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ইনিংসে ১২৯ রানের মূল্যবান লিড পেয়েছে মুশফিকুর রহিমের দল।

দেশের বাইরে টেস্টে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ লিড এটিই। তাতে সবচেয়ে বড় অবদান ১১৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলা সাকিব আল হাসানের। শ্রীলঙ্কার হেরাথ ও সান্দাকান নিয়েছেন ৪টি করে উইকেট।

জোড়া ধাক্কা: রঙ্গনা হেরাথের পরপর দুই বলে এলবিডব্লিউ হয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ ও মুস্তাফিজুর রহমান। মিরাজ (২৪) রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। তবে মুস্তাফিজ রিভিউ নিলে বাঁচতে পারতেন। টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, হেরাথের বল মুস্তাফিজের উইকেট মিস করেছিল! মুস্তাফিজকে ফিরিয়ে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এক হাজার উইকেট পূর্ণ করেন হেরাথ।

নিজেদের ছাড়িয়ে বাংলাদেশ: দেশের বাইরে টেস্টে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ লিড ছিল ১০৯ রান, ২০১৩ সালে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। কলম্বো টেস্টে সেটি ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের শতরানের লিড: তৃতীয় দিনে চা বিরতির পর শতরানের লিড পেয়েছে বাংলাদেশ। সাকিব আল হাসান ফেরার পর মিরাজকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে চলছেন মোসাদ্দেক। ক্রিজে মোসাদ্দেক ৫৯ এবং মেহেদী ১১ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

সেঞ্চুরির পর ফিরলেন সাকিব: সেঞ্চুরির পর সান্দাকানের শিকার হয়ে ফিরলেন সাকিব। দলীয় ৪২১ রানের মাথায় সান্দাকানের বলে চান্দিমালের হাতে ধরা পড়লে মোসাদ্দেকের সঙ্গে সাকিবের ১৩১ রানের জুটিতে ছেদ পড়ে। ১৫৯ বলে সাকিবের ১১৬ রানের ইনিংসটি ১০টি চারের সাহায্যে সাজানো ছিল।

সাকিবের পঞ্চম টেস্ট সেঞ্চুরি: টেস্ট ক্রিকেটে নিজের পঞ্চম সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। গতকাল শেষ বিকেলে বেপরোয়া ব্যাটিং করা সাকিবকে আজ দেখা গেল পুরোই ভিন্নরূপে। প্রথমে মুশফিক তারপর অভিষিক্ত মোসাদ্দেকের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন সাকিব। দিলরুয়ান পেরেরার ওভারের প্রথম বলেই বাউন্ডারী হাঁকিয়ে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন সাকিব। ১৪৩ বল মোকাবেলায় ৬ চারের সাহায্যে সেঞ্চুরি তুলে নেন দেশসেরা এ অলরাউন্ডার।

মোসাদ্দেকের প্রথম ফিফটি: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক টেস্টেই ফিফটি তুলে নিয়েছেন মোসাদ্দেক। মুশফিকের আউটের পর ব্যাট হাতে সাকিবকে দারুণভাবে সহায়তা করে যাচ্ছেন তিনি। বাংলাদেশ ইনিংসের ১০৭ তম ওভারে সান্দাকানের বলে ডাবলস নিয়ে ফিফটি পূর্ণ করেন তিনি। ফিফটি পূরণ করতে ৮৫ বল মোকাবেলা করে ৬টি চার ও ১টি ছক্কা হাকান তুরুণ মোসাদ্দেক।

সাকিব-মোসাদ্দেকের শতরানের জুটি: অভিষিক্ত ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের সঙ্গে  জুটি গড়ে শত রান তুলে নিয়েছেন সাকিব আল হাসান। সাকিবের ৪৭ রানের সঙ্গে ৪৯ রান ছিল মোসাদ্দেকের। তাদের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বড় সংগ্রহের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে টিম বাংলাদেশ।

বাংলাদেশের লিড: সুরাঙ্গা লাকমালকে মিড উইকেট দিয়ে চার হাঁকালেন মোসাদ্দেক হোসেন। তাতে বাংলাদেশ পেরিয়ে গেল শ্রীলঙ্কার করা ৩৩৮ রান। বাংলাদেশের লিড তখন ৩ রানের। পরের বলেও অবশ্য চার মেরেছেন অভিষিক্ত মোসাদ্দেক। তরুণ ব্যাটসম্যান তখন ৩১ ও সাকিব ৬৬ রানে ব্যাট করছিলেন।

প্রথম সেশন বাংলাদেশের: এক মুশফিকের উইকেটটি না পড়লে প্রথম সেশনটি আরো উজ্জ্বল হয়ে থাকত বাংলাদেশের। তবে সাকিবের সঙ্গে ৯২ রানের জুটিতে বাংলাদেশকে অনেক দূর টেনে আনায় মুশফিককে কৃতিত্ব দিতে কার্পণ্য করবে না সমর্থকরা। সাকিবের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বহুদূর দৃষ্টি রাখছে টাইগাররা। কলম্বো টেস্টের তৃতীয় দিনের প্রথম সেশনে ১ উইকেট খরচায় ১০২ রান সংগ্রহ করেছে সফরকারীরা। লঙ্কানদের চেয়ে মাত্র ২২ রান পিছিয়ে থেকে লাঞ্চের বিরতিতে গেছে বাংলাদেশ।

সাকিবের ২২তম ফিফটি: মুশফিকের পর কলম্বো টেস্টের প্রথম ইনিংসে ফিফটির দেখা পেলেন সাকিব আল হাসান। টেস্টে এটি ক্যারিয়ারের ২২তম ফিফটি বিশ্বসেরা এ অলরাউন্ডারের। লাকমলের বলে সিঙ্গেল নিয়ে ৫০ রান পূর্ণ করেন তিনি। ফিফটি করতে ৬৯ বল মোকাবেলায় ৫টি চারের মার মারেন সাকিব।

বোল্ড হয়ে ফিরলেন মুশফিক: ফিফটি পূরণের পর ক্রিজে থিতু হতে পারলেন না মুশফিকুর রহিম। ৮০ ওভার পর নতুন বল দেখে শুনে খেলতে পারেননি মুশফিক। সুরাঙ্গা লাকমলের বলে সরাসরি বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। প্যাভলিয়নে ফেরার আগে ৮১ বল মোকাবেলায় ৬টি চারের সাহায্যে ৫২ রান করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

মুশফিকের ফিফটি: তৃতীয় দিনের শুরুতে বাংলাদেশকে স্বপ্ন দেখাচ্ছেন টাইগার অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম। পি সারা ওভালে তৃতীয় দিনের শুরুতে সাকিবের সঙ্গে দারুণ বোঝাপড়ায় ফিফটি তুলে নেন মুশফিক। ৬৬ বল মোকাবেলায় ৬টি চারে ফিফটি পূরণ করেন টাইগার দলপতি।

বাংলাদেশের ২৫০: গতকাল শেষ বিকেলের হতাশা ভুলে তৃতীয় দিনের শুরুতেই সতর্ক ব্যাটিং করছে বাংলাদেশ। ৫ উইকেটে ২১৪ থেকে তৃতীয় দিন শুরু করা বাংলাদেশ ইতিমধ্যেই আড়াইশ ছাড়িয়ে গেছে। দলীয় অধিনায়ক মুশফিক ও অলরাউন্ডার সাকিবের ব্যাটে চড়ে বহুদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখছে টাইগাররা।

দ্বিতীয় টেস্টের তৃতীয় দিনে আজ খেলা শুরু হয়েছে সকাল ১০.৩০ মিনিটে। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করছে চ্যানেল নাইন, টেন ক্রিকেট ও টেন থ্রি।