মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর, ২০১৭

আশরাফুল পারল

SONALISOMOY.COM
মে ১৫, ২০১৭
news-image

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রিমিয়ার লিগে ব্যর্থতার বৃত্ত থেকে বেরিয়ে অবশেষে ব্যাট হাসল মোহাম্মদ আশরাফুলের। টানা ব্যর্থতার মধ্য আজ বিকেএসপিতে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের বিপক্ষে ৮১ রানের ইনিংস খেললেন। তাঁর এই ইনিংসে শেখ জামালকে বেশ সহজেই ৭ উইকেটে হারিয়েছে কলাবাগান ক্রীড়াচক্র।
নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে গত জাতীয় লিগেই ফিরেছিলেন আশরাফুল। কিন্তু তেমন কিছু করতে পারেননি। সে কারণেই প্রথম শ্রেণির ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিএসএল) খেলার সুযোগ হয়নি তাঁর। প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে ফিরলেন এবার। কিন্তু সেখানেও একই অবস্থা। ব্যাট হাসছিল না। ৭ ম্যাচে করেছিলেন মাত্র ৮৮ রান।
গত ম্যাচে ব্রাদার্সের বিপক্ষে দলে ছিলেন না। পারিবারিক সমস্যা ও রান না পাওয়ার চাপে মানসিকভাবে বিধ্বস্ত ছিলেন। একটু বিশ্রাম চেয়েছিলেন। বিশ্রামটা তাঁর ভালোই কাজে লেগেছ। গোটা লিগে যে পরিমাণ রান করেছেন, আজ করেছেন তার কাছাকাছিই।
৮৭ বলে ৬টি চার ও ২টি ছক্কা সাজানো তাঁর ইনিংসটি। মেহরাব হোসেন জুনিয়রের সঙ্গে ১১১ রানের অবিচ্ছিন্ন এক জুটি গড়ে দলকে নিয়ে গেছেন জয়ের বন্দরে। মেহরাব অপরাজিত ছিলেন ৪৩ রানে। এর আগে ৪৫ ওভারে নেমে আগে ম্যাচে টসে জিতে শেখ জামাল ২১৩ রানের বেশি করতে পারেনি। রাজিন সালেহর ব্যাট থেকে এসেছে সর্বোচ্চ ৪৫। এ ছাড়া সোহাগ গাজী ৩৯ আর ইলিয়াস সানি ৩৬ রান করেন। ৩২ রান করেন মাহবুবুল করিম। কলাবাগানের আবুল হাসান ৫০ রানে নেন ৩ উইকেট। সাদ নাসিম ও মুক্তার আলী পেয়েছেন ২টি করে উইকেট।
২১৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে ৬২ রানের ওপেনিং জুটির পর কলাবাগানের দ্বিতীয় উইকেট পড়ে ৮১ রানে। ১০৩ রানে তৃতীয় উইকেট পড়ার পর দলকে বয়ে নিয়ে যায় আশরাফুল-মেহরাব জুটি। আশরাফুলের ৮১ আর মেহরাবের ৪৩ ছাড়াও ওপেনার তাসামুল হক করেছেন ৪৮ রান। এ ছাড়া জসিমউদ্দিন ২৯ আর তুষার ইমরান ১০ রান করেন। শেখ জামালের তানভীর হায়দার ও শাকিল ১টি করে উইকেট নেন।
স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে নিজের ক্রিকেট জীবনের বড় একটা অংশ হারিয়ে ফেলেছেন। ৩৩-এর দোরগোড়ায় দাঁড়িয়ে এখনো জাতীয় দলে ফেরার স্বপ্ন দেখেন আশরাফুল। কিন্তু তার আগে নিজের অপরিহার্যতা তো প্রমাণ করতে হবে। আশরাফুল ছন্দ ফিরে পেয়ে হারিয়ে না ফেললেই হয়!

এ জাতীয় আরও খবর