মঙ্গলবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১৭

বাগমারায় আ.লীগের অনুষ্ঠান স্থগিত হয়নি, বহিষ্কৃতদের অপপ্রচার

SONALISOMOY.COM
নভেম্বর ২০, ২০১৭
news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক
আগামী ২২ নভেম্বও বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান নিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। দলের ভেতরের বিতর্কিত ও বহিষ্কৃত নেতারা এই অপপ্রচারে লিপ্ত বলে অভিযোগ করা হয়। আগামী ২২ নভেম্বর (বুধবার ) যথাসময়ে অনুষ্ঠান শুরু হবে।

বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, দল ও স্থানীয় সাংসদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেওয়াতে উপজেলা আ.লীগের নয় নেতাকে বহিষ্কাররের সুপারিশ কওে উপজেলা কমিটি। পরে জেলা কমিটি ওই নেতাদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়। এর পর জেলা কমিটি উপজেলা কমিটির প্রস্তাবকে আমলে নিয়ে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাকিরুল ইসলাম সান্টু, তাহেরপুরের মেয়র আবুল কালাম আজাদসহ নয় নেতাকে বহিষ্কারের সুপারিশ করে কেন্দ্রে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আগামী ২২ নভেম্বর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধনের জন্য কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রধান অতিথি হিসাবে বাগমারায় আসবেন। এছাড়াও কেন্দ্রীয় এবং জেলার নেতারাও অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন। বহিষ্কৃত সান্টু, কালামসহ ৯ নেতা এই অনুষ্ঠানে থাকার যোগ্যতা হারানোর ফলে বেসামাল হয়ে পড়েছেন।
অনুষ্ঠানটি বানচালের চেষ্টা চালিয়েও ব্যর্থ হচ্ছে। এই কারণে ওই চক্রটি এখন অপপ্রচাওে নেমেছে। অনুষ্ঠানে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী আসছেন না এবং তা স্থগিত করা হয়েছে বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে।

আয়োজকেরা  সোমবার রাত সাড়ে আটটায় এই প্রতিবেদককে মুঠোফোনে বলেন, সব অতিথিরা যথাসময়ে অনুষ্ঠানে আসবেন। কউ আসবেন না এমন কথা অতিথিরা কাউকে বলেননি। এটা অপপ্রচার মাত্র। এসব অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুল জানান, অনুষ্ঠানটি সফল করার সব ধরণের উদ্যোগ ও প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানের প্রধান ও বিশেষ অতিথিরা হেলিকপ্টারে আসবেন এজন্য আজ হেলিপ্যাড পরিদর্শন করা হয়েছে। কোনো অপপ্রচার ও ষড়যন্ত্র অনুষ্ঠানকে বিতর্কিত করতে পারবে না। যথাসময়ে এবং নির্দিষ্ট দিনেই অনুষ্ঠিত হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মতিউর রহমান টুকু বলেন, তাদের অপপ্রচার হাস্যকর ছাড়া কিছুই নয়। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান দেশের বাইরে রয়েছেন, তারা জেলার সম্পাদকের বক্তব্য তাদের নিজস্ব ওয়েবপোর্টালে দিয়ে হাস্যরসের সৃষ্টি করেছে।

অনুষ্ঠানে পুরষ্কারের বিষয়ে স্থানীয় সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হকের যে বক্তব্য প্রকাশ করেছে তাও বানোয়াট। সাংসদের সঙ্গে কোনো আলাপই হয়নি।
সাংসদ ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক এসব অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। যথাসময়ে এবং নির্দিষ্ট দিনেই অনুষ্ঠান হবে বলে তিনি নেতা-কর্মীদের জানিয়েছেন।

এ জাতীয় আরও খবর