সোমবার, ১৮ জুন, ২০১৮

তাহেরপুরে আ.লীগের সভা অনুষ্ঠিত
অস্ত্রবাজদের ভয়ে ভীত হবে নাঃ এনামুল হক এমপি ষড়যন্ত্রকারীদের কারণেই আ.লীগ শক্তিশালীঃ আসাদ

SONALISOMOY.COM
ডিসেম্বর ১০, ২০১৭
news-image

বাগমারা প্রতিনিধি
নির্ভয়ে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করার আহ্বান জানিয়ে তাহেরপুরের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে রাজশাহীর-৪(বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক বলেছেন, কোনো অস্ত্রবাজের কাছে আতœসমার্পন নয়, তাদের বর্জন করতে হবে। তাদের জায়গা বাগমারায় হবে না। নেতা-কর্মীদের মাঝ থেকেই আগামীতে নেতৃত্ব আসবে। তিনি সন্ত্রাসী ও অস্ত্রবাজদের ইঙ্গিত করে বলেছেন, তাদের দলে জায়গা হবে না। অস্ত্রবাজী করে বেশিদিন টিকে থাকা যায় না। রোববার বিকেলে তাহেরপুর উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সদস্য সংগ্রহ ও নবায়নের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেছেন।

এনামুল হক আরও বলেন, একটি চক্র তাহেরপুর পৌরসভার প্রতিষ্ঠাতা আলো খন্দকারকে হত্যার মধ্য দিয়ে সন্ত্রাসীর রাজত্ব কায়েম করার চেষ্টা করছে। তাদের বিষয়ে সর্তক থাকাতে হবে। সাংসদ দলের একটি কুচক্রি মহলকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, কিছু নেতা নৌকা নিয়ে বিজয়ী হয়ে জামায়াত-বিএনপির সঙ্গে আঁতাত করে চলেছেন। তাঁরা আগামী নির্বাচনে জামায়াত-বিএনপির প্রার্থীকে বিজয়ী করার অপচেষ্টায় লিপ্ত। আওয়ামী লীগের সাধারণ নেতা-কর্মীরা ওই চক্রের ষড়যন্ত্র সফল হতে দিবে না। জনগণের ভোটে আবারো আওয়ামী লীগ বিজয়ী হবে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, যারা সদস্য হতে বাধা প্রদান ও সভায় আসতে বাধা এবং হুমকী দেয়, তাদের আওয়ামী লীগ করার অধিকার নেই।
এনামুল হক ওইসব ষড়যন্ত্রকারীদের কঠোর হস্তে দমনের ঘোষণা দিয়ে বলেন, বাগমারার মাটিতে ওইসব বিশ্বাসঘাতক ও বেঈমানদের ঠাঁই হবে না। তাহেরপুর পৌরসভার লোকজনের মাঝে সবসময় থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

সাংসদ তাহেরপুর পৌরসভার উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে বলেছেন, তাঁর প্রচেষ্টায় এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ডিও লেটারের মাধ্যমে তাহেরপুর পৌরসভার প্রতিটি উন্নয়নের বরাদ্দ নিয়ে আসা হয়েছে। সাংসদ উন্নয়নে ধীরগতিতে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, অর্থ লুপাটের জন্য উন্নয়ন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করা হচ্ছে না। ডিও লেটারের মাধ্যমে নদীর তীর সংরক্ষণ প্রকল্পের জন্য ১০ কোটি ও বিভিন্ন উন্নয়নে ৩০ লাখ টাকার প্রকল্প দেওয়া হলেও আজও তা বাস্তবায়ন হয়নি। অথচ প্রকল্পের অর্থ আতœসাতের জন্য তাঁর বিরুদ্ধে উন্নয়ন প্রকল্পে বাধা প্রদানের মিথ্যা অভিযোগ আনা হচ্ছে। তিনি তাহেরপুর পৌরসভার সব ধরণের উন্নয়নের দায়িত্ব নিয়ে বলেন, পর্যায়ক্রমে সব সমস্যার সমাধান করা হবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ জামায়াত-বিএনপির সমালোচনা করে বলেছেন, তারা মুখে ইসলামের কথা বললেও ধর্ম এবং ইসলামের জন্য কিছুই করেনি। তাদের সময়ে বিভিন্ন অপসংস্কৃতির প্রসার ঘটেছে। বর্তমান সরকার সুস্থ ধারার সাংস্কৃতির পরিবেশ ফিরে এনেছে। তিনি বাগমারার কিছু উচ্চশৃৃংখল নেতাদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, তাদের অপতৎপরতার কারণেই আজ বাগমারার আওয়ামী লীগ শক্তিশালী। তারা দলের কোনো ক্ষতি করতে পারবে না। তিনি আগামী নির্বাচনে আবারো আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করার ও দলের সদস্য হওয়ার আহ্বান জানান।
আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত নেতাদের বাধা উপেক্ষা করে  দুপুর থেকে বিপুল সংখ্যক নেতা-কর্মীরা মাঠে এসে উপস্থিত হয়।

 

 

 

তাহেরপুর পৌর আ’লীগ নেতা মরহুম আবেদ আলী মৃধার পুত্র আমজাদ হোসেন মৃধার সভাপতিত্বে ও উপজেলা আ’লীগ ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ গোলাম সারওয়ার আবুলের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আ’লীগের সহ-সভাপতি অনিল কুমার সরকার, রুস্তম আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান চঞ্চল, সাংগঠনিক সম্পাদক আলফোর রহমান, আহসানুল হক মাসুদ, সাবেক সাংগঠনিক অধ্যাপক আব্দুস সামাদ, দপ্তর সম্পাদক ফারুক হোসেন ডাবলু, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ কুমার প্রতীক দাশ রানা, শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম প্রামানিক। উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তাহেরপুর কলেজের অধ্যক্ষ আওয়ামী লীগ নেতা তোফাজ্জল হোসেন, ভবানীগঞ্জ পৌরসভা আ’লীগের সভাপতি ও মেয়র আব্দুল মালেক মন্ডল, উপজেলা আ’লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মতিউর রহমান টুকু, রিয়াজ উদ্দীন আহম্মেদ, আফতাব উদ্দীন আবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দীন সুরুজ, সহদপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম, সহপ্রচার সম্পাদক ফরহাদ হোসেন মজনু, জেলা আ’লীগের সদস্য জাহানারা বেগম, জেলা পরিষদ সদস্য মাহমুদুর রহমান রেজা, সোনাডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আজাহারুল হক, ঝিকরা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ ফৌজদার, দ্বীপপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মকলেছুর রহামন দুলাল, উপজেলা আ’লীগের সদস্য সোলাইমান আলী, সুলতানা ইয়াসমিন ফরিদা, কাচারী কোয়ালী পাড়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য অধ্যক্ষ হাতেম আলী, সোনাডাঙ্গা ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক কাঞ্চন রায় চৌধুরী, মাড়িয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক সামসুল হক, গোলায়কান্দি ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, আ’লীগ নেতা লোকমান আলী, ওমর আলী, উপজেলা মহিলা লীগের সভানেত্রী মরিয়ম বেগম, সাধারণ সম্পাদক কহিনুর বেগম, ভবানীগঞ্জ পৌরসভার সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আক্তার বেবি, গোয়ালকান্দির ইউপি সদস্য মাহাবুর রহমান, তাহেরপুর পৌর আ’লীগ নেতা শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন, মাহাবুবুল হক শাহী, আয়নুল হক, যুব মহিলা লীগের সভাপতি প্রভাষক শাহীনুর খাতুন, জেলা যুবলীগ নেতা সেজানুর রহমান সেজান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আল-মামুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শামীম মীর, তাহেরপুর পৌর যুবলীগের সম্পাদক সুমন শাহ, জেলা ছাত্রলীগ নেতা উজ্জল হোসেন, আবু সাইদ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আব্দুল মালেক নয়ন, সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, ভবানীগঞ্জ কলেজ ছাত্রলীগের সভাপিত নাদিরুজ্জামান মিলন, এনামুল হক প্রমুখ। এসময় জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন এবং দুটি পৌর সভার আ’লীগ ও অংগ সহযোগি সংগঠনের নের্তৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ জাতীয় আরও খবর