মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর, ২০১৮

মা-বাবার সমর্থনে ‘গয়নার বাক্স’ নিয়ে অগ্রসর হচ্ছেন রিয়া

SONALISOMOY.COM
মে ১৩, ২০১৮
news-image

সাকিব আল রোমান : নাসরিন আক্তার রিয়া। জগন্নাথ ইউনিভার্সিটির এমবিএর একজন শিক্ষার্থী। খুব স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসেন। শুধু স্বপ্ন? না তিনি বাস্তবায়ন করতেও খুব পছন্দ করেন। রিয়ার স্বপ্নগুলো অাপনাকে ভাবাতে বাধ্য করবে। মায়ের অনুপ্রেরণায় আজ তিনি সফলতার দাড়প্রান্তে দাড়িয়ে। একজন শিক্ষার্থীর বাহিরে তিনি একজন ব্যবসায়ী! পারিবারিক কোন চাপ না থাকলে সাধারণতো আজকালকার রমণীরা পার্কে বসে আড্ডা দিতে পছন্দ করলেও রিয়া যেন তাদের থেকে ব্যতিক্রম। সবকিছুর বাহিরে নিজেকে নিয়ে ভাবতে ভালোবাসেন তিনি। ভবিষ্যত নিয়ে খুবই চিন্তিত একজন মানুষ নাসরিন।

স্বপ্নের শুরুটা ২০১৬ সালের মার্চ মাসে। স্বাধীনতার মাস বলেই কি নিজেকে স্বাধীন ভাবে তৈরী করতে এই সিদ্ধান্ত কিনা জানতেই কথা বলেছেন এই প্রতিবেদক।

সাথে আরও ৩ জনের টিম নিয়ে স্বপ্নের পথে একটু একটু করেই এগিয়ে যাচ্ছেন রিয়া। তার বুটিক্সের নাম করন করেছেন ‘গয়নার বাক্স’।

নাসরিন আক্তার রিয়া এই প্রতিবেদককে জানিয়েছেন তার এই স্বপ্ন ও ভালোলাগার কথা। ইন্ডিয়ান জুয়েলারী, কন্দন, জয়পুরী, মেটাল সিলভার, দেশী গোল্ড ও এক্সক্লুসিভ ব্রাইডালের ডায়মন্ড কাট জুয়েলারীর সমগ্র নিয়ে অনলাইনে বুটিক্স ব্যবসা করে নিজেকে তৈরী করছেন আগামীর জন্য।

ঈদের সেলামি পাওয়া ও সাধারণতো যা হয় মেয়েদের হাত খরচা সব বীমা করার মত বেচে যাওয়া ঠিক সেভাবেই ৫,০০০ টাকা পুঁজি নিয়ে অচেনা-অজানা একটা গন্তব্যের দিকে অগ্রসর হয়েছেন রিয়া। তার আর কিছু ভাবার নেই। তিনি শুধু নিজেকে সফলতার চূড়ায় দেখতে চান। তিনি স্বপ্ন দেখেন, এই লাল-নীল বাতির শহরে তারও একটি শো-রুম থাকবে। তিনিও প্রমাণ করতে চান, মেয়ে হয়ে জন্মানোটা কোন অভিশাপ নয়, আশীর্বাদ।

এত অল্প পুঁজি নিয়ে সমুদ্র পাড়ি দেয়ার সাহস জন্মানো মেয়েটাকে কি জানার ইচ্ছে জেগেছে আরো? তাহলে পাঠকের জন্য আরেকটু পরিস্কার করাই যায়। এই মেয়েটিকে যিনি মেন্টাল সাপোর্ট করছেন তিনি গর্ভধারিনি মা। আর যিনি ফ্রীনেন্সিয়াল সমর্থন করেছেন তিনি জন্মদাতা পিতা।

কৃতজ্ঞতা স্বীকার করার মতো আর কেউ আছে কিনা জানতে চাইলে রিয়া অকপটেই বলেন, অনুপ্রেরণা দিয়ে শুরু করলেও সমর্থন একটা বড় বিষয় যা বাস্তবতা শেখায় প্রতিনিয়ত। এমন বাস্তবতার মুখোমুখি যারা সমর্থন করেন তাদের কি ভুলে যাওয়া যায়? রিয়াও যে ভুলে যায়নি! তিনি জানালেন আশা ইউনিভারসিটি শিক্ষদের ভালোবাসাও ছিল তার এই স্বপ্ন জয়ের অংশীদার। সাইফুল্লাহ স্যার, রুবিনা আফরোজ মেম তালিকার প্রথমেই চলে আসবে কেননা, তারা সত্যিই আমাকে অনেক ভালোবাসেন এবং সমর্থন করেন। অাছেন জয়নভ সিদ্দিকা মেম, ভক্ত স্যার, এবং তানভীর স্যারেরাও। আর আমার সিডনিতে থাকে ছোট ভাইয়া ওয়েভ সাইট নিয়ে কাজ করতেছে এবং ডায়না মেম।