বুধবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৮

বাগমারায় নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা সালামকে ফিরে পেতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল

SONALISOMOY.COM
অক্টোবর ১৫, ২০১৮
news-image

বাগমারা প্রতিনিধি: রাজশাহীর বাগমারায় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম নিখোঁজের ঘটনায় তাকে স্ব-শরীরে অক্ষত অবস্থায় ফিরে পেতে মানববন্ধন এবং বিক্ষোভ মিছিল করেছে তার পরিবারের লোকজন সহ এলাকাবাসী। নিখোঁজের ২৪ ঘন্টা পরও তার কোন সন্ধান করতে পারেনি আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

 
 
নিখোঁজ আব্দুল সালামকে ফিরে পেতে সোমবার বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে চেউখালী কদম তলার মোড় এলাকায় প্রায় দুই হাজার লোকজন মানববন্ধন করে। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে তারা। আব্দুস সালামকে দ্রুত পরিবারের নিকট ফিরে পেতে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন নিখোঁজ আব্দুস সালামের স্ত্রী আফরোজা বেগম, মেয়ে শাপলা খাতুন, ইউনিয়ন আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, আ’লীগ নেতা মাস্টার বকুল খরাদী, উপজেলা মহিলালীগের সভাপতি মরিয়ম বেগম, মাস্টার রফিকুল ইসলাম, ছাত্রলীগ নেতা আতাউর রহমান, সোহেলা রানা প্রমুখ।
 
 
বক্তারা বলেন, দ্রুত নিখোঁজ আব্দুস সালামকে ফিরে পাওয়া না গেলে কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা দেয়া হবে। তারা আরো বলেন, আব্দুস সালাম যদি অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে তার বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যাওয়া হলো না কেন? কাপুরুষের মতো গোপনে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হলো কেন ? আব্দুস সালাম যদি আইনের চোখে অপরাধী হয়ে থাকে তাহলে আদালতের নিকট সোপর্দ করে আইনের মাধ্যমেই তার বিচার করা হক। দ্রুত আব্দুস সালামকে খুঁজে বের করতে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যের প্রতি আহ্বান জানান তারা।
 
 
নিখোঁজ সালামের স্ত্রী আফরোজা বেগম জানান, রোববার সকালে ভবানীগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ অফিসে উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। সেখানে কাজ শেষ করে দুপুর ১২ পর পর বাড়ি ফেরার পথে পলাশী নামক স্থানে এলে তার মটরসাইকেলের গতি রোধ সাদা টি শার্ট পরিহিত দুজন ব্যক্তি। তারা সেখানে আগে থেকে একটি কালো মাইক্রোবাস নিয়ে অবস্থান করছিল বলে এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে।
 
 
এলাকাবাসী আরো জানান, আব্দুস সালামকে মটর সাইকেল থেকে জোর পূর্বক টেনে নামান এবং সেখানে থাকা কালো মাইক্রোবাসের ভেতরে তুলে এবং দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। সেই সাথে আব্দুস সালামের এপাসি মটর সাইকেল ওই চক্রের দুই জনে নিয়ে যায়। পরে স্থানীয়দের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ওই কালোমাইক্রোবাস এবং মটরসাইকেলটি নওগাঁর আত্রাই উপজেলার দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এমন বিষয়টি নিশ্চিত করেছে আত্রাইয়ের শিংসারা বাজারের লোকজন। তবে তাদের পিছু নিলেও কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।
 
 
নিখোঁজ আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুস সালাম উপজেলার গোয়ালকান্দি ইউনিয়নের চেউখালি গ্রামের মৃত আব্দুস সোবহান প্রামানিকের ছেলে। আব্দুস সালাম বাগমারা উপজেলা আওয়ামী লীগের কৃষি ও সমবায় বিষয়ক সম্পাদক এবং গোয়ালকান্দি ইউনিয়ন আ’লীগের সহ-সভাপতি। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন। এছাড়াও আব্দুস সালাম একজন প্রতিষ্ঠিত পল্ট্রি ব্যবসায়ী । এছাড়াও মাছের খাবার এবং আলু মজুদের ব্যবসা রয়েছে তার।
 
 
আব্দুস সালাম নিখোঁজের ঘটনায় তার স্ত্রী আফরোজা বেগম রাতে বাগমারা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেছেন। ঘটনাটি জানার পর থেকে পুলিশ নিখোঁজ সালামের অবস্থান জানতে তদন্ত শুরু করেছে। কি কারনে তিনি নিখোঁজ হলেন তা জানা সম্ভব হয়নি। তবে এরই মধ্যে সব থানায় রিপোর্ট পাঠানো হয়েছে এবং তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বরটি ট্যাকিং করা হচ্ছে তথ্য পাওয়া মাত্রই তাকে উদ্ধার করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন বাগমারা থানার অফিসার ইনচার্জ নাছিম আহম্মেদ।