রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

শিথীর একাল-সেকাল

SONALISOMOY.COM
অক্টোবর ২১, ২০১৮
news-image

সাকিব আল রোমান : আফসানা মীর শিথী। একটি নাম কিন্তু বহু গুনে গুনান্নিত। হোম টাউন টাংগাইল তবে বেড়ে ওঠা ঢাকার মিরপুরে। মিরপুরের আলো বাতাস তার সবচেয়ে চেনা। শহীদ আনোয়ার স্কুল থেকে যাত্রা শুরু সেরা হওয়ার। অনেক স্বপ্ন নিয়েই পথচলা শুরু হয়েছিল শিথীর। ছোটবেলার সহজ-সরল শিথী নাচতে পছন্দ করতেন। বাবার অনাগ্রতে থমকে যায় সেই অগ্রযাত্রা। শুরু হয় রবীন্দ্র সংগীত চর্চা। ব্যাড মিন্টন খেলা তখন তার প্রিয় শখ। জীবনের পথচলায় এগিয়ে আসেন ঢাকা কমার্স কলেজ।

শখ শব্দটি শিথীর মাথা থেকে তারিয়ে দেয়ার ভাবনা সর্বক্ষণ। শিথীকে হতেই হবে সেরাদের একজন। কিছুতেই যেন কিছু হয়ে ওঠছেনা। নাছোড় বান্দা শিথী। কিন্তু বাস্তবতা যেন তার প্রিয় সব দূরে রাখে! কলেজ জীবন শেষ করে। সেরা ছাত্রীদের তালিকায় থাকলেও শিথীকে কিছু একটা অজানা জয় তুলে আনতে উৎসাহিত করতো মন।

ঢাকা ভার্সিটিতে পড়ার স্বপ্নটাও বেকে যায় পছন্দের বিষয়টি না পেয়ে। পরিবারের অনিচ্ছায় হয়নি জাহাঙ্গীর নগরেও। তবে ফিরিয়ে দেয়নি জগন্নাথ। এই জগন্নাথ অনেক আইডল গড়ার কারিগর। তিনি ঠিক মানুষটিকে তার কোলে জায়গা করে দিলেন। শুরু হল বিশ্ববিদ্যালয়ের জয়রথ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও তার মন মত হয়। তাকে সর্বদা সাপোর্ট করে। প্রবাদ মনে পড়ে গেলো, ‘রতনে রতন চেনে’ হয়তো তেমনই শিক্ষকরা মেধাবীদের চিনে।

শিথীর ভাষ্যমতে, চেয়ারম্যান স্যার আলী নূর, সজল স্যার, অনুপ স্যার, আরেফিন স্যার, নাসির স্যার সবসময় খুব অনুপ্রেরণা দিয়েছে। তখন তিনি সিদ্ধান্ত নেন তিনি ব্যবসা করবেন। কিন্তু ঠিক কি ব্যবসা করা যায়? তখন তিনি ভাবতে থাকেন আগামী প্রজন্ম নিয়ে। আজকের বাংলাদেশ আর ১০ বছর পরের বাংলাদেশ নিশ্চয়ই এক হবেনা। তারা অনেক বেশী আপডেট হবে। তারা প্রযুক্তি বিষয়ে হবে বিশেষ জ্ঞানী।

যেই ভাবনা সেই কাজ। স্যোশাল মিডিয়া ফেসবুকে জন্মদেন ‘সিঁদূর’ নামক এক বুটিক্স শপের স্বপ্নের ঘর। আর বর্তমান শিথীর প্রায় ৭০ হাজার ক্রেতার সমাহার। এই শিথী একটা সময় হাল ধরেছেন নিজ পরিবারের। পাশে দাড়িয়েছিলেন বাবার। এই শিথীর জীবনে আসে মডেল হওয়ার প্রস্তাব। আসে বিয়ের চাপও! কিছুই যেন দমিয়ে রাখতে পারেনি এই ছোটবেলার বোকা সহজ-সরল শিথির জয়যাত্র।