রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

নৌকা পাবে না স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা: শেখ হাসিনা

SONALISOMOY.COM
নভেম্বর ১৪, ২০১৮
news-image

সোনালী সময় ডেস্ক: স্থানীয় সরকার নির্বাচনে জয়ীরা সংসদ সদস্য হিসেবে মনোনয়ন পাবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার গণভবনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার গ্রহণের সময় দেয়া বক্তব্যে এ কথা বলেন দলের প্রধান। বেলা সাড়ে ১২ টা থেকে দেড়টা পর্যন্ত প্রায় একঘণ্টা বক্তব্য দেন শেখ হাসিনা।

তিনশটি আসনে নৌকার প্রার্থী হতে ৩ হাজার ৬২৮ জন দলীয় মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। যাদের মধ্যে একটি বড় অংশই উপজেলা চেয়ারম্যান বা পৌরসভার মেয়র। আছেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানরাও।

মনোনয়ন প্রত্যাশী স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিদের উদেশ্যে শেখ হাসিনা বলেন, ‘চেয়ারম্যান বানিয়েছি; মেয়র বানিয়েছি। আবার আপনাদের এমপিও বানাতে হবে। দলে আর লোক নেই।’

বিভিন্ন আসনে অস্বাভাবিক হারে মনোনয়ন ফরম বিক্রির বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘সেখানে নেতৃত্ব শূন্যতা রয়েছে, সেখানে যত বড় নেতাই হোক না কেন, তারা পার্টিকে অর্গানাইজ করতে পারে নাই। এটা তাদের নেতৃত্বশূন্যতার প্রমাণ।

শেখ হাসিনা আরও বলেন, ‘জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে জরিপ চালিয়েছি। এর ভিত্তিতে মনোনয়ন দেওয়া হবে। কোনো প্রার্থীর প্রতি ভোটারের সমর্থন আছে, সেটা বিবেচনায় নেওয়া হবে।’

মনোনয়ন যাকেই দেয়া হোক, তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশও দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। তিনি বলেন, ‘প্রার্থীর বিরোধিতা করা হলে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হবে। একটা সিটেও হারব; কারো এমন মনোভাব পোষণ করা যাবে না।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। ক্ষমতায় আসলে অনেক পদ ক্রিয়েট করা হবে সেখানে সবাইকে একমোডেট করা হবে।’

আগামী জাতীয় নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়ার ক্ষেত্রে কে বড় নেতা; কে ছোট নেতা এই বিষয়টি গুরুত্ব পাবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, জরিপে যারা এগিয়ে তাদের হাতেই উঠবে নৌকা প্রতীক।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘যারা এগিয়ে থাকবে তাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হবে। সেখানে ছোট নেতা, বড় নেতা দেখা হবে না। যাকে মনোনয়ন দেব তার পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। নইলে বিপদ হবে। ক্ষমতায় আসছি এমন মনোভাব পরিহার করতে হবে।’

তিনি বলেন, গত দুই নির্বাচনে এনেছি, এবারো আমিই ক্ষমতায় আনব; এটা মনে করে কোনো লাভ নেই। প্রার্থীর নিজ নিজ যোগ্যতা, দক্ষতা, রাজনৈতিক ত্যাগ-তিতীক্ষা থাকতে হবে। জনসম্পৃক্ত হতে হবে।’