রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০১৯

পোস্টার টাঙ্গানোর কর্মী পাচ্ছেনা হেনা, হ্যাট্রিকের পথে এনামুল

SONALISOMOY.COM
ডিসেম্বর ১৭, ২০১৮
news-image

সোনালী সময় প্রতিবেদক: রাজশাহী-৩ (বাগমারা) আসনে প্রচার-প্রচারণায় এগিয়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রকৌশলী এনামুল হক এমপি। কেবল মাঠের প্রচার নয়, বাগমারার নির্বাচনী এলাকায় হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লাসহ মোড়গুলোতে প্রজেক্টরের মাধ্যমে ডিজিটাল প্রচারেও এগিয়ে এই নৌকার প্রার্থী। ভোটের মাঠ দখলে থাকায় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উজ্জীবিত। বিভেদ কাটিয়ে ভোটের মাঠে একাট্টা হয়ে বিজয় ছিনিয়ে নিতে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন তারা।

তবে শুরু থেকেই পিছিয়ে পড়েছেন বিএনপির প্রার্থী দুই বারের সাবেক এমপি আবু হেনা। ভোটের প্রচারে চরম কর্মসংকটে রয়েছেন তিনি। পোস্টার ব্যানার ফেস্টুন লাগানোর কর্মী পাচ্ছেন বিএনপির এই প্রার্থী। যদিও বিএনপির নেতারা দাবি করছেন শঙ্কা ও সংশয় কাটিয়ে ভোটের মাঠে সরব হচ্ছে বিএনপির নেতাকর্মীরাও।

রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন তিন প্রার্থী। এরা হলেন, আওয়ামী লীগের দুইবারের এমপি প্রকৌশলী এনামুল হক, বিএনপির দুইবারের সাবেক এমপি আবু হেনা ও ইসলামি আন্দোলনের তাজুল ইসলাম খান।

১৬টি ইউনিয়ন ও দুইটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ আসনে এবার ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৭৮ হাজার ৮ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ৩৮ হাজার ৭১১ এবং নারী ভোটার ১ লাখ ৩৯ হাজার ২৯৭ জন। এ আসনে এবার নতুন ভোটার ২৪ হাজার ৪৬০ জন। আর ভোট কেন্দ্র ১০৬টি।

বিভেদ মিটিয়ে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে ভোটের মাঠে নামায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রকৌশলী এনামুল হকের প্রচারে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। নৌকার পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুনে ছেয়ে গেছে নির্বাচনী এলাকার হাট-বাজার, পাড়া-মহল্লাসহ মোড়গুলো। প্রতিদিন পাড়ায় পাড়ায় গণসংযোগ করে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অধ্যাপক মতিউর রহমান টুকু বলেন, ‘‘অতিতের যে কোন সময়ের চেয়ে বাগমারা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক দিক থেকে অনেক শক্তিশালী। উপজেলা থেকে শুরু করে ওয়ার্ড পর্যায়েও সংগঠিত নেতাকর্মীরা। প্রতীক বরাদ্দের পর নেতাকর্মীরা নৌকার পক্ষে ঝেঁপে পড়ে। তাই উপজেলাজুড়ে নৌকার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এবার প্রায় ২ লাখ ভোটে নৌকা বিজয় হবে’’ বলে মনে করছেন এই আওয়ামী লীগ নেতা।

অপরদিকে, আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ঠিক উল্টো অবস্থানে বিএনপির প্রার্থী সাবেক এমপি আবু হেনার অবস্থান। উপজেলা সদর ভবানীগঞ্জ ও তাহেরপুর পৌরসভাসহ উপজেলার গুরুত্বপূর্ন পয়েন্টে আবু হেনার কিছু পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন দেখা গেলেও অন্যান্য এলাকায় কোন প্রচার প্রচারণা নেয়। পোস্টার টাঙ্গানোর জন্য কর্মী পাচ্ছেন বিএনপির এই প্রার্থী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ইউনিয়ন বিএনপির এক সভাপতি জানান, ‘‘প্রতিটি ইউনিয়ন নেতৃবৃন্দের কাছে আবু হেনা পোস্টার, ব্যানার ও ফেস্টুন পৌঁছে দিয়েছেন। কিন্তু সেগুলো টাঙ্গানোর কর্মী পাওয়া যাচ্ছে না। লোক কিনে নিয়ে এগুলো টাঙ্গানোরও টাকা তিনি পাঠাননি। ফলে সেগুলো পড়ে রয়েছে।’’

উপজেলা বিএনপির এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ১০ বছর আগে বিএনপির শক্ত অবস্থান ছিল তাই আবু হেনা দুইবার এমপি হয়েছেন। কিন্তু এখন বাগমারায় বিএনপির নাজুক অবস্থা। গত ১৪ বছর তিনি এলাকায় আসেননি। নেতাকর্মীদের কোন খোঁজ খবর নেননি। নেতারাই তার পক্ষে ভোটের মাঠে নামছেন না। তাদের ভোটের মাঠে নামার কোন পরিবেশ এখনো তৈরী করতে পারেননি আবু হেনা। তা হলে কর্মীরা কিভাবে ভোটের প্রচার চালাবে। এ ছাড়াও নেতাকর্মীদের মধ্যে গ্রেপ্তার আতঙ্কও কাজ করছে’’ বলে দাবি করেন বিএনপির ওই নেতা।

[related_post themes="flat" id="180983"]