সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

বাগমারায় ভ্রাম্যমান বিদ্যুৎ সংযোগ ‘আলোর ফেরিওয়ালা’ কার্যক্রমের উদ্বোধন

SONALISOMOY.COM
জানুয়ারি ২৭, ২০১৯
news-image

বাগমারা প্রতিনিধি: আলোর ফেরিওয়ালা এবার বাগমারায়। ভ্যানে বিদ্যুৎ সংযোগের সরঞ্জাম নিয়ে বাড়িতে বাড়িতে হাজির হচ্ছেন বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। গ্রাহকের আবেদন পাওয়া মাত্র ফি নিয়ে দেওয়া হচ্ছে সংযোগ। এ যেন এক স্বপ্ন, যা মানুষ আগে কখনও ভাবেনি।

এক সময়ের বিদ্যুৎ ছিল সোনার হরিণ। আর বর্তমানে বিদ্যুৎ বাড়িতে এসে দিয়ে যাচ্ছে মাত্র ৫ মিনিটে। ভ্যানগাড়িতে আছে মিটার, বিদ্যুতের তারসহ অন্যান্য সরঞ্জাম। আছেন দু’জন লাইনম্যান ও একজন ওয়্যারিং পরিদর্শক।

প্রতিদিন সকাল থেকে গ্রামে গ্রামে ঘুরছেন তারা। গ্রাহক বিদ্যুৎ নিতে চাইলে মাত্র পাঁচ মিনিটেই পেয়ে যাবেন সংযোগ। কোন হয়রানি নেই, দিতে হবে না কোন বাড়তি অর্থ। ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগের নাম দেওয়া হয়েছে ‘আলোর ফেরিওয়ালা’।

নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির-১এর উদ্যোগে উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছে আলোর ফেরিওয়ালা ভ্যান। রবিবার থেকে শুরু হওয়া এই কার্যক্রম উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন আর ২টি পৌরসভায় চলমান থাকবে।


সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, ভ্যানে মিটার, তার থেকে শুরু করে সব ধরনের সরঞ্জাম থাকছে। যে এলাকার বাসাবাড়িতে এখনও বিদ্যুৎ নেই, সেই এলাকায় বেশি যাচ্ছেন, সেখানে মানুষের সঙ্গে কথা বলছেন। যারা নতুন সংযোগ নিতে আগ্রহী, তাদের সদস্য ফি বাবদ ৫০ টাকা, আর জামানত হিসেবে ৪০০ টাকা (বাণিজ্যিক হলে ৮০০) জমা দিতে হচ্ছে।

আলোর ফেরিওয়ালাদের কাছে টাকা জমা নেয়ার রসিদ বই থাকছে, তারা সেখানে বসেই টাকা জমা করছেন। এরপর ওয়্যারিং পরিদর্শক ওয়্যারিং যাচাই করে ঠিক আছে জানালেই সংযোগ দেওয়া হচ্ছে। পুরো প্রক্রিয়ায় মাত্র পাঁচ-ছয় মিনিট সময় লাগছে। গ্রাহককে অফিসে আসতে হচ্ছে না, আবেদনের পাঁচ মিনিটেই পাচ্ছেন সংযোগ।

এ ছাড়া পল্লী বিদ্যুতের লোকজন গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়ানোর কারণে পুরোনো গ্রাহকদের কোন সমস্যা থাকলে সেটাও দ্রুত ঠিক করে নিতে পারছেন। মাড়িয়া গ্রামের নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়া বেশ কয়েকজন গ্রাহক বলেন, ‘আজ আমি নতুন বিদ্যুৎ লাইন পাইছি, আমার ফটো ও কাগজ দিতে কিছু সময় দেরি হইছে কিন্তু বিদ্যুৎ লাইন পাইতে মাত্র পাঁচ মিনিট সময় লাগছে।

মাড়িয়া ইউনিয়নে উদ্বোধন করা হয় আলোর ফেরিওয়ালা। প্রধান অতিথি হিসেবে এই কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন রাজশাহী-৪(বাগমারা) আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার এনামুল হক।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, নাটোর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর বাগমারা জোনাল অফিসের ডিজিএম রেজাউল করিম, এজিএম রথীন্দ্রনাথ বসাক, এইসি শাহনেওয়াজ, ওয়ারিং পরিদর্শক আসাফ উদ দৌলা, সদস্য সেবা কো-অর্ডিনেটর দেওয়ান আব্দুল ওয়াহেদ, বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাছিম আহম্মেদ, জেলা আ’লীগের সহ সভাপতি অনিল কুমার সরকার, বাগমারা উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আবুল, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সিরাজ উদ্দীন সুরুজ, দপ্তর সম্পাদক ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, সহ-দপ্তর সম্পাদক নুরুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা লীগের সভাপতি মরিয়ম বেগম, সাধারণ সম্পাদক পারভীন বেগম, যুব মহিলা লীগের সভাপতি শাহিনুর খাতুন প্রমুখ।

বাগমারা জোনাল অফিসের ডিজিএম রেজাউল করিম জানান, ‘প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’ এই প্রতিপাদ্যকে বাস্তবায়ন করতে একেবারে তৃণমূল পর্যায়ে বিদ্যুৎ সংযোগ পৌঁছে দিতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যদিও বাগমারায় শতভাগ বিদ্যুতের হাতছানি দিচ্ছে। তারপরও এই আলোর ফেরিওয়ালার কার্যক্রম চলমান থাকবে।