সোমবার, ১৯ আগস্ট, ২০১৯

চক বাজারে আগুনে মারা গেলো ৭০ জন

SONALISOMOY.COM
ফেব্রুয়ারি ২১, ২০১৯
news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক: সময় যতই যাচ্ছে লাশের মিছিলও ততো বাড়ছে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আসার পর থেকেই চলছে স্বজনদের লাশের সন্ধান। এরই মধ্যে প্রায় ৭০ জনের লাশ বের করা হয়েছে। তবে লাশের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস ও আইন সৃংখলা বাহিনী। নিহতদের নাম পরিচয় এখনো জানা সম্ভব হয়নি। পুরে যাওয়ার মাত্রা এতটা ভয়াবহ যে লাশের পরিচয় নিশ্চিত করতে স্বজনরাও হিমশিম খাচ্ছে।

ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক লে. কর্নেল জুলফিকার বলছেন, আমাদের উদ্ধার কাজ এখনো শেষ হয়নি। ভিতরে আরও লাশ থাকতে পারে।

সর্বশেষ সকালে হেলিকপ্টারে করে উপর থেকে পানি ছিটানোর পর আগুন একেবারে নিয়ন্ত্রন আনতে সক্ষম হন।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন ও মেইনটেন্যান্স) এ কে এম শাকিল নেওয়াজ ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা গেলেও রাসায়নিকসহ বিভিন্ন দাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন পুরো নেভাতে আরও কিছুটা সময় লাগবে।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আলী আহমেদ বলেন, উদ্ধারকাজ পুরোপুরি শেষ হওয়ার পর  লাশের আসল সংখ্যা নিশ্চিত হওয়া যাবে।

রাজধানীর চকবাজার এলাকার নন্দকুমার দত্ত সড়কের চুড়িহাট্টা শাহী মসজিদের পেছনের ওই ভবনে বুধবার দিবাগত রাত ১০টা ১০ মিনিটে আগুন লাগে। রাত সাড়ে তিনটার দিকে আগুনের ভয়াবহতা কমলেও তা একসময় আবারও বেড়ে যায়। আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিসের একাধিক ইউনিট।

এখন পর্যন্ত কতজন দগ্ধ হয়েছেন তা নির্দিষ্টভাবে জানা যায়নি। অর্ধশতাধিক ঢাকা মেডিকেল বার্ন ইউনিটে ভর্তি।তাদের অনেকের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে।

প্রাথমিকভাবে পুলিশের এক উর্দ্ধতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত। সেই সাথে একাধিক গাড়ির সিলিন্ডার বিস্ফোরন হয়ে আগুনের ভয়াবহতা আরও বেড়ে যায়।

এরই মধ্যে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন মেয়র সাঈদ খোকন। তিনি বলেন, ফায়ার সার্ভিসের শতাধিক কর্মীসহ অনেকেই এখানে কাজ করছেন। নগরবাসীসহ, দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন। যাতে করে সাধারণ মানুষের জানমালের নিরাপত্তা আমরা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়।