সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

চেরম্যানের মুকুলের নির্দেশে আবাদি জমি নষ্ট করে জোর পূর্বক রাস্তা নির্মান

SONALISOMOY.COM
জুন ২৩, ২০১৯
news-image

সোনালী সময় প্রতিনিধি: রাজশাহী জেলার পুঠিয়া উপজেলার শিলমাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুলের বিরুদ্ধে তিন ফসলি জমি জোর পূর্বক দখল করে রাস্তা নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার ২৩ জুন, বেলা ১১ টার দিকে সরগাছি মোজার সরগাছি দক্ষিন পাড়া বিলে সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, সরগাছি দক্ষিন পাড়ার এলাকার সাথে সরগাছি গ্রামের সংযোগ রাস্তাটি দীর্ঘ দিন থেকে বন্ধ ছিল। প্রায় অর্ধ কি.মি. রাস্তাটি বার বার চেষ্টা করেও দক্ষিন পাড়ার সাথে রাস্তাটি সংযোগ করতে পারেননি শীলমাড়িয়ার চেয়ারমেন সাজ্জাদ হোসেন মুকুল।

এলাকা বাসীর দীর্ঘ দিনের দাবির পরিপেক্ষিতে গত শনিবার দিবাগত রাত ১১ টার দিকে পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী জোর পূর্বক পুর ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার কামাল হোসেন ও তার ক্যাডার বাহিনীর লোকজন দিয়ে লাঠি সটা নিয়ে রাতের আধারে মাটিকাটা ভেকু মেশিন দারা রাস্তার কাজটি শুরু করেন।

খবর পেয়ে জমির মালিকেরা রাতেই ঘটনা স্থলে গিয়ে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন বলে স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান।

এদিকে গত ২০/০৬/২০১৯ তারিখে মৌজার জমির মালিকেরা যথা আব্দুল আজিজ প্রাং, আলাল প্রাং, আঃ জব্বার, সাইদুর রহমান, আবুল কালাম আজাদ সহ ৩১ জন জমির মালিক পুঠিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। কাজ শুরু হওয়ার পর অভিযোগকারীদের অনেকেই উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার সাথে মোবাইলে কাজ বন্ধের জন্যে অনুরোধ জানান বলে এই প্রতিবেদকে জানান।

চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল, মেম্বার কামাল হোসেন ও তাদের ক্যাডার বাহিনীর কাছে জমির মালিকেরা অসহায় হয়ে পড়েন।

এ ব্যাপারে শীলমাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল বলেন, জমি মালিকেরা আমার কাছে কোন অভিযোগ করেনি তারা ইউওনো সাহেবের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে শুনেছি।

তিনি এই প্রতিবেদক কে আরো বলেন যাদের জমির উপর দিয়ে রাস্তা নির্মান করা হচ্ছে তাদের ক্ষতি হয়তো আমি পুরন করতে পারবোনা কিন্তু পরবর্তিতে এই রাস্তাটি হয়ে গেলে জমির মালিক সহ এলাকাবাসি এর সুফল পাবেন

তিনি বলেন এলাকার মানুষের সার্থে এবং এলাকার মানুষের ফসল ঘরে তোলার কাজে এই রাস্তাটি এলাকাবাসীর সুফল বয়ে আনবে।

এদিকে জমির মালিকেরা অভিযোগ করে বলেন শিলমাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল ও ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার কামাল হোসেনসহ তাদের ক্যাডার বাহিনীর লোকজন দিয়ে রাস্তার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ ব্যাপারে ১ নং ওয়ার্ডের মেম্বার কামাল হোসেনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, চেয়ারম্যনের নির্দেশে আমি প্রায় রাস্তার কাজটি সম্পন্ন করেছি।

এ ব্যাপারে পুঠিয়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা অলিঊজ্জামান এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন আমি শীলমাড়িয়ার চেয়ারমেন সাজ্জাদ হোসেন মুকুলকে জমির মালিকদের সাথে আলোচনা করে কাজটি করার কথা বলেছি অন্যথায় এ ব্যাপারে আবার ও অভিযোগ পেলে ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।