বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১

ইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্সে কেনাকাটায় ব্র্যাক ব্যাংকের নিষেধাজ্ঞা

SONALISOMOY.COM
জুন ২৩, ২০২১
news-image

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ইভ্যালি, আলেশা মার্ট, ই-অরেঞ্জ, ধামাকা শপিং, সিরাজগঞ্জ শপিং, আলাদিনের প্রদীপ, বুম বুম, কিউকম, আদিয়ান মার্ট ও নিডস ডট কম বিডি।

সম্প্রতি ইভ্যালির কার্যক্রম পরিদর্শনের পর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়কে প্রতিবেদন পাঠিয়েছে বাংলাদেশ। তারপরেই ই-কমার্স ব্যবসা বিষয়ে নড়েচড়ে বসেছে ব্র্যাক ব্যাংক। ইভ্যালিসহ ১০টি ই-কমার্সে কেনাকাটায় নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে ব্যাংকটি।

প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ইভ্যালি, আলেশা মার্ট, ই-অরেঞ্জ, ধামাকা শপিং, সিরাজগঞ্জ শপিং, আলাদিনের প্রদীপ, বুম বুম, কিউকম, আদিয়ান মার্ট ও নিডস ডট কম বিডি। এ সাইটগুলো থেকে ব্র্যাক ব্যাংকের ক্রেডিট, ডেবিট ও প্রি-পেইড কার্ডের মাধ্যমে কেনাকাটা করা যাবে না।

এ বিষয়ে ব্র্যাক ব্যাংকের গণসংযোগ বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা ইকরামুল কবীর গণমাধ্যমকে জানান, বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসব অনলাইন মার্কেট প্লেস-এর বিরুদ্ধে নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় এই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এটি ব্র্যাক ব্যাংকের একটি কৌশলগত সিদ্ধান্ত। কোনো প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আমাদের অংশীদারিত্ব থাকবে তা নির্ণয় করে আমাদের পরিচালনা পরিষদ। তারা এই সাইটগুলোতে লেনদেন আপাতত স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

ইভ্যালিসহ কিছু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান গ্রাহকদের কাছ থেকে অগ্রীম টাকা জমা নেয়। তারপর দীর্ঘ সময় পরে পণ্য ডেলিভারি দেয়। বিশাল ছাড় দিয়ে মানুষকে আকর্ষিত করলেও অনেক সময় পণ্য দেয়া হয় না। পরে জমা দেয়া অর্থের চেয়ে বেশি ফেরত দেয়। ফলে অনেকে পণ্য না পেলেও আর্থিক মুনাফা বিবেচনায় সেগুলো থেকে কেনাকাটা করে।

এ বিষয় নিয়ে উদ্বেগ থেকেই অনুসন্ধান করে বাংলাদেশ ব্যাংক। সেখানে উঠে এসেছে, অনলাইনভিত্তিক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান (ই-কমার্স) ইভ্যালির চলতি সম্পদের পরিমাণ ৬৫ কোটি ১৭ লাখ টাকা। এর বিপরীতে প্রতিষ্ঠানটির দেনার পরিমাণ ৪০৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা। সম্পদের চেয়ে ৬ গুণের বেশি এই দেনা পরিশোধ করার সক্ষমতা কোম্পানিটির নেই।