বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১

বাগমারায় কোরবানি উপলক্ষে বেড়েছে চুনের চাহিদা

SONALISOMOY.COM
জুলাই ১৯, ২০২১
news-image

বাগমারা প্রতিনিধি: ঈদুল আজহার আর বাঁকি একদিন। রাত পোহালেই মুসলিম উম্মাহর সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহা। ঈদুল আজহায় মাহান আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা পশু কোরবানি দিয়ে থাকেন। সেই পশুর ভুড়ি (বট) খেতে অনেক সুস্বাদু। সেই ভুড়ি পরিস্কারের জন্য অপরিহার্য উপদান হচ্ছে পাথরের চুন।

পাথরের চুন দিয়ে ভুড়ি পরিস্কার করলে কোন ময়লা লেগে থাকেনা। একদম স্বচ্ছ দেখায় ভুড়ি। অনেকের কাছে মাংসের চেয়ে ভুড়ির চাহিদায় বেশি। কোরবানির পশুর ভুড়ি পরিস্কার করতে শেষ সময়ে চুনের দোকানে ভিড় লক্ষ্য করা যাচ্ছে। ১০ থেকে ২০ টাকার মধ্যে পাওয়া যাচ্ছে পাথরের এসব চুন।

সোমবার রাজশাহীর বাগমারায় ঈদুল আজহা উপলক্ষে চুন বিক্রিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন সেন্টু নামের এক ব্যবসায়ী। তার বাড়ি ভবানীগঞ্জ পৌরসভার শিবজাইট গ্রামে। ছোট বেলা থেকেই তিনি চুনের ব্যবসা করে আসছেন। অল্প পুঁজি দিয়ে চালানো যায় চুনের ব্যবসা। বছরের অন্য সময় চুনের চাহিদা কম থাকলেও ঈদুল আজহায় এর চাহিদা বেড়ে যায় অনেকগুণ। চুন ছাড়া হয়ই না কোন পশুর ভুড়ি পরিস্কার কাজ।

তিনি আরো বলেন, এটা আমার বাবার পেশা। বাবার সাথে হাটে বসে ছোট থেকেই চুনের ব্যবসা শিখেছি। এটাতে লাভের পরিমান বেশি। এখন চুনের ব্যবসা করে যাচ্ছি। চুন তৈরির প্রধান উপকরণ পাথর আর নদী বা পুকুরের চাচা। এগুলো থেকেই তৈরি হয় চুন। এছাড়াও পান খেতেও চুন প্রয়োজন হয়।

সেন্টুর কাছ থেকে চুন কিনছিলেন আবুল কাশেম নামে এক ব্যক্তি। তিনি বলেন, আমি একটা খাশি কোরবানি দিবো। এটার ভুড়ি পরিস্কারের জন্য ২০ টাকার চুন কিনলাম। এতেই আমার হয়ে যাবে।