বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারি, ২০২৩

আনন্দ প্রাঙ্গণ-এনআরবি কম্যুনিটির সহযোগীতায় প্রিমিয়াম সিনিয়র হোমকেয়ার প্রজেক্টের যাত্রা শুরু

SONALISOMOY.COM
জানুয়ারি ৫, ২০২৩
news-image

বিশ্বব্যাপী জনসংখ্যা পরিবর্তনের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য দিকগুলোর মধ্যে অন্যতম জনসংখ্যার বার্ধক্য। কিন্তু যেহেতু প্রবীণ ব্যক্তিরা তাদের দক্ষতা, জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতার বিচারে সমাজের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য এবং যেকোনো সমাজকে এগিয়ে নিতে সক্রিয় ভূমিকা রাখে, তাই সম্মানের সঙ্গে জীবনের শেষ দিনগুলো কাটাতে চাওয়া শুধু তাদের আকাঙ্খা নয় বরং অধিকার।

এই বিষয়টি মাথায় রেখেই আনন্দ প্রাঙ্গণের সংগঠকরা প্রবীণদের জন্য যথাযথ যত্ন, মনোরম পরিবেশ এবং সম্ভাব্য সকল সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে একটি শান্তিপূর্ণ আবাসন নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে। এই লক্ষ্যে গত ২ জানুয়ারি ধানমণ্ডিতে একটি গোলটেবিল বৈঠক ও বিশেষ কর্মশালার আয়োজন করা হয়। সেখানে আর্কিটেকচার ও ডেভেলপমেন্ট সেক্টর, কম্যুনিকেশন ও পারস্পেক্টিভ স্টেকহোল্ডার সেক্টরের প্রবীণ সদস্যের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।কর্মশালা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কল্পরেখা ও কণ্ঠনিলন নামের সাংস্কৃতিক সংগঠন।

প্রবীণদের আবাসন নিয়ে পাশ্চাত্য চিন্তাধারা আমাদের দেশে এখনও অকল্পনীয়। যদিও আমাদের প্রতিবেশি দেশগুলো (চীন, জাপান, ভিয়েতনাম ইত্যাদি) সে তুলনায় অসাধারণ কাজ করে যাচ্ছে। সিনিয়র সিটিজেনদের সঠিক জীবনমান নিশ্চিত করতে তারা এখন গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড নির্ধারণ করছে। এছাড়া প্রবীণদের বসতি নিয়ে চীনে কিছু চমৎকার ধারণাও রয়েছে। অথচ আমাদের এখানে সঠিক পরিকল্পনার তো নেই, এমনকি বয়স্কদের জন্য নির্ধারিত সুবিধাও খুবই অপ্রতুল।ইভেন্টে বর্তমানে বিদ্যমান অবস্থা এবং সুযোগ ও সম্ভাবনা নিয়ে বক্তব্য রাখেন এনআরবিএইচইউবি ডটকম এবং প্যানেল-এক্সপির সিইও আসিফ জাহান।

এছাড়া প্রাইভেট এন্টারপ্রাইজের মাধ্যমে পরিচালিত এসব সংগঠনের বেশিরভাগকে প্রয়োজনীয় পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে নানারকম প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হতে হয়। তাই চলমান অবস্থা মাথায় রেখে সংগঠকরা প্রবীণদের জন্য যথাযথ সুযোগ-সুবিধাসহ শান্ত ও নিরিবিলি একটি আবাসন প্রতিষ্ঠার কথা ভাবছে।

‘পিছিয়ে থাকবে না কেউ’ এই মন্ত্রে আন্তর্জাতিক সমাজের প্রবৃদ্ধি, উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে, যেটি জাতিসংঘ প্রণোদিত সাস্টেইনেবল ডেভেলপমেন্ট গোলস ডকুমেন্টের মূল সৌন্দর্য্য। তাই প্রবীণ নাগরিকদের উন্নতির লক্ষ্যে নীতিনির্ধারকদের এগিয়ে আসতে হবে। এমন আশাবাদই ছিল অনুষ্ঠানের মূল উপজীব্য।পুরো ইভেন্টটি পরিচালনায় সার্বিক সহযোগীতা করে এসিই-এসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি এমপাওয়ারমেন্ট এবং ওয়েবএবল ডিজিটাল।